The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

redporn sex videos porn movies black cock girl in blue bikini blowjobs in pov and wanks off.

আধুনিক লাইফস্টাইল মানুষের স্মৃতিভ্রংশ ও মৃত্যু ঘটাচ্ছে

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ বর্তমানে আধুনিক লাইফ স্টাইল তথা কম্পিউটার, মোবাইল ব্যবহার ও রাসায়নিক দ্রব্যাদি ব্যবহারের ফলে অল্প বয়স্কদের স্মৃতিভ্রংশসহ বিভিন্ন মানসিক সমস্যা দেখা দিচ্ছে এবং মৃত্যুর হার বাড়ছে – সাম্প্রতিক এক গবেষণায় এই তথ্য উঠে এসেছে।

Dementia

গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে স্মৃতিভ্রংশ ও স্নায়বিক কারনে মৃত্যু সংখ্যার হার সূক্ষ্ম বৃদ্ধি হয়ছে, এ কারনে গড়ে ৭৪ বছরের উপরের মানুষের মৃত্যু হলেও এই বিষয়টি আমাদের দীর্ঘ কাল বেঁচে থাকার নিশ্চয়তা দিচ্ছেনা।

অন্য আরেক গবেষণায় দেখা যায় প্রথম সারির ১০টি পশ্চিমা দেশে স্নায়বিক মৃত্যু আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। ১৯৭৮ সাল থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত স্নায়বিক কারনে ৬৬ শতাংশ পুরুষের মৃত্যু হয়েছে এবং অপরদিকে একই কারণে নারীর মৃত্যু হার ছিল ৯২ শতাংশ। তালিকায় চতুর্থ অবস্থানে থাকা গ্রেট ব্রিটেনে স্নায়বিক মৃত্যু হার পুরুষের ক্ষেত্রে ৩২ শতাংশ ও নারীর ক্ষেত্রে ৪৮ শতাংশ।

Bournemouth University-এর  অধ্যাপক Colin Pritchard বলেন, “প্রকৃত পরিসংখ্যানে যে পরিমাণ মানুষ এবং পরিবারের কথা বলা হয়েছে তাতে দেখা যায় এটা মহামারীর পর্যায়ে পড়ে, এবং এটা পরিস্কারভাবে প্রাকৃতিক ও সামাজিক পরিবর্তনের ফল।”

Pritchard এবং তার সহকর্মীদের গবেষণায় দেখা যায়, মোট স্নায়বিক কারণে মৃত্যুর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে, যাতে স্মৃতিভ্রংশ মৃত্যুও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। যার প্রভাবে রোগী, তাদের পরিবার এবং স্বাস্থ্য ও সামাজিকসেবা ভীষণ ভাবে প্রভাবিত হতে থাকে।

এই গবেষণা বিশেষ করে তুলে ধরে, পশ্চিমা দেশ গ্রেট ব্রিটেনে বড়দের ১৯৭৯ থেকে ২০১০ সালের মধ্যে স্নায়বিক মৃত্যুর একটি ভীতিকর ‘লুকানো মহামারী’ আছে।

গবেষণায় যে ১৬ টি দেশের কথা বলা হয়েছে, সেখানে পুরুষদের এবং মহিলাদের মধ্যে মোট স্নায়বিক মৃত্যু উল্লেখযোগ্য মাত্রায় বেড়ে গেছে যেটা অন্য সাধারণ মৃত্যু থেকে অনেক বেশি।

অধ্যাপক Colin Pritchard বলেন, “এই স্নায়বিক মৃত্যু বৃদ্ধি, আগের থেকে স্মৃতিভ্রংশ ঘটার কারণে হয়ে আসছে, এবং এটা একটা পরিবারের জন্য বিধ্বংসী এবং যথেষ্ট জনস্বাস্থ্য সমস্যার সৃষ্টি করে।”

গত ৩০ বছর ধরে ইলেকট্রনিক ডিভাইসে যে পরিবর্তন সাধিত হয়ছে তারই পটভূমিতে এসেছে কম্পিউটার, মাইক্রো ওয়েভ ওভেন, টেলিভিশান, মোবাইল ফোন, স্থল ও আকাশ পথে পেট্রো কেমিক্যালের অধিক ব্যবহার ইত্যাদি। এসব কিছুর সংস্পর্শে গিয়ে মানুষ উন্নত ও আধুনিক জীবন যাপন করছে। এর ফলে ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বহুগুণে বেড়ে যাচ্ছে, এজমা রোগীর সংখ্যাও বাড়ছে, স্মৃতিভ্রংশসহ অন্যান্য মানসিক সমস্যার রোগী বেড়েই চলেছে।

অতএব এখনি আধুনিক লাইফ স্টাইল নিয়ে সচেতন না হলে সামনে বিরাট স্বাস্থ্যগত সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে আমাদের।

তথ্য সূত্রঃ ইন্ডিয়া টুডে।

Loading...
sex không che
mms desi
wwwxxx