অবিশ্বাস্য কুংফু দক্ষতা এক ৯৪ বছরের বৃদ্ধার!

আজ রয়েছে অবিশ্বাস্য কুংফু দক্ষতা এক ৯৪ বছরের বৃদ্ধার গল্প

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ চীনের জনপ্রিয় মার্শাল আর্ট হলো কুংফু। শরীর ফিট ও স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য কুংফুর কোনো জুড়ি নেই। আজ রয়েছে অবিশ্বাস্য কুংফু দক্ষতা এক ৯৪ বছরের বৃদ্ধার গল্প!

চীন হাজার বছর ধরে মার্শাল আর্টের চর্চার করে আসছে। সম্প্রতি চীনের জিয়াংসু প্রদেশে সন্ধান পাওয়া গেছে ৯৪ বছরের এক বৃদ্ধার। তিনি ৯৪ বছর বয়সেও তরুণদের সঙ্গে সমান তালে কুংফু লড়াই চালিয়ে যেতে সক্ষম।
ওই বৃদ্ধার নাম ঝাং হেক্সিয়ান। ২০/২৫ বছর বয়স হতে তিনি কুংফু চর্চা চালিয়ে আসছেন। এই বয়সেও মানুষ তার শারীরিক ফিটনেস দেখে অবাক হয়ে যান। তার শক্তি দেখে গ্রামের মানুষ বিস্মিত হন। কারণ হলো ওই গ্রামে তার সমান বয়সী কেওই বেঁচে নেই। ঝাং এখনও চমৎকার ও সুন্দর স্বাস্থ্য নিয়ে বহাল তবিয়তে বেঁচে রয়েছেন।

ঝাং হেক্সিয়ানের কুংফু প্রাকটিসের সময় তার হাত-পা চলে বাতাসের গতিতে। লাঠি নিয়ে লড়াইয়ের সময় তার সঙ্গে পেরে ওঠা খুবই কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। তিনি নিজের গ্রামের সব বয়সী মানুষকে কুংফু শেখাচ্ছেন। প্রতিদিন তার আঙিনায় গ্রামের নাতি-নাতনি, তরুণ-তরুণীরা জড়ো হয়। তিনিও পরম যত্নে তাদেরকে কুংফু প্রশিক্ষণ দেন। ঝাং হেক্সিয়ানের দিন শুরু এবং শেষ হয় কুংফু দিয়ে। এই বয়সে এতো খাটাখাটনি করেও কোনো ক্লান্তি নেই ঝাং হেক্সিয়ানের। প্রতিদিন তিনি একই রুটিন চালিয়ে যাচ্ছেন।

চীনের পিপলস ডেইলিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ঝাং হেক্সিয়ান জানান, ৩/৪ বছর বয়স হতে তার বাবা তাকে কুংফু শেখানো শুরু করেন। কুংফু প্রশিক্ষণ নেওয়ার জন্য তিনি রাত ৩টায় ঘুম হতে উঠতেন। সেই প্রশিক্ষণ চলতো সকাল গড়িয়ে যাওয়া অবধি।

বর্তমানে ঝাং হেক্সিয়ান বিধবা। তার ছেলের নাম ফেংচুংইন। তাকেও তিনি নিয়মিত কুংফু শেখান। তিনি মনে করেন, প্রতিটি মানুষের জন্যই কুংফু খুবই উপকারী। মানুষ যদি ভালোভাবে কুংফু চর্চা করেন, তাহলে যেকোনো সময় শত্রুর আক্রমণ হতে নিজেকে রক্ষা করতে পারেন অনায়াসে। তাছাড়া শরীর স্বাস্থ্যও থাকে ভালো।

Advertisements
Loading...