The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

বিশ্বের প্রথম বৃহত্তম কৃত্রিম সূর্য জ্বলে উঠলো!

সানলাইট বিল্ডিং তিন তলা উঁচুতে ১৪০ জেনন শর্ট আর্ক ল্যাম্প জ্বালানো হয়েছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ এবার সত্যিই জ্বলে উঠলো বিশ্বের প্রথম বৃহত্তম কৃত্রিম সূর্য। গত ২৩ মার্চ থেকে জার্মানিতে আলো ও তাপ ছড়াতে শুরু করেছে এটি।

বিশ্বের প্রথম বৃহত্তম কৃত্রিম সূর্য জ্বলে উঠলো! 1

২৩ মার্চ এই কৃত্রিম সূর্য উদ্বোধন করেন জার্মানির পরিবেশমন্ত্রী জোহানস রেমেল, অর্থমন্ত্রী গর্গ মেনজেন ও জার্মান অরোস্পেস সেন্টারের এগজিকিউটিভ বোর্ড মেম্বার কার্স্টেন লেমের। এই বৃহত্তম কৃত্রিম সূর্যের নাম দেওয়া হলো ‘সানলাইট’।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, সৌরশক্তির ব্যবহারই ভবিষ্যতের এনার্জির উৎস। তবে পৃথিবীর অনেক জায়গাতেই ঠিকমতো সূর্যরশ্মি পৌঁছায় না। সে কারণে প্রয়োজন থাকলেও সৌরশক্তির সাহায্য সব জায়গায় ঠিকমতো পাওয়া সম্ভব নয়। মূলত সে সমস্ত এলাকার কথা মাথায় রেখেই এই কৃত্রিম সূর্য তৈরি করা হয়েছে। গবেষকরা বলেছেন, সানলাইট হতে হাইড্রোজেন প্রস্তুত করা সম্ভব হবে। যেহেতু হাইড্রোজেন পুড়লে কার্বন ডাই অক্সাইড গ্যাস প্রস্তুত হয় না, সে কারণে ভবিষ্যতে হাইড্রোজেনকেই জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করতে হবে বলে মনে করছেন গবেষকরা। সানলাইট বিল্ডিং তিন তলা উঁচুতে ১৪০ জেনন শর্ট আর্ক ল্যাম্প জ্বালানো হয়েছে।

উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, মাল্টিপ্লেক্সের লার্জ সিনেমা স্ক্রিণে আলোর জন্য একটিমাত্র জেনন শর্ট আর্ক ল্যাম্প জ্বালানো হয়। ২০ বাই ২০ সেন্টিমিটার এলাকাকে ৩ হাজার ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত উত্তপ্ত করে তুলতে পারে এই সানলাইট। গবেষকরা এই প্রচণ্ড তাপমাত্রায় হাইড্রোজেন গ্যাস প্রস্তুত করছেন। সোলার রেডিয়েশন ব্যবহার করে হাইড্রোজেন প্রস্তুত করার প্রণালী বেশ কয়েক বছর আগে থেকেই করা হচ্ছে। তবে সানলাইটের কারণে প্রচুর পরিমাণে হাইড্রোজেন উত্‍পন্ন করা সম্ভব। যা ইন্ডাস্ট্রিয়াল জোনেও ব্যবহার সম্ভব বলে গবেষকরা মনে করছেন।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...