ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত অতীতের ব্যবসাসফল ৯ ছবি সম্পর্কে জানুন

বিগত দুই যুগে এমন অসংখ্য দর্শকপ্রিয় ছবি হয়েছে ঈদুল ফিতরে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ঈদে ছবিমুক্তির অর্থই হলো ব্যবসায়িক সাফল্যের সম্ভাবনা। কারণ হলো একশ্রেণীর দর্শকরা এখনও ঈদে ছবি দেখতে সিনেমা হলে ভিড় জমান। তাই নির্মাতারা চান ছবির বাণিজ্যিক সাফল্য নিশ্চিতে ঈদে ছবি মুক্তি দেওয়ার জন্য। ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত ব্যবসাসফল ৯ ছবি সম্পর্কে রয়েছে প্রতিবেদন।

এবার ঈদুল ফিতরে মাত্র দুই দিন পূর্বে ঈদের মুক্তির জন্য ৩টি ছবি চুড়ান্ত করা হয়। এরমধ্যে নবাব,এবং বস ২ যৌথ প্রযোজনার ছবি। নবাব ছবিতে শাকিব খানের বিপরীতে রয়েছেন কোলকাতার নায়িকা শুভশ্রী। অপরদিকে বস ২-তে জিৎ, শুভশ্রী ও ফারিয়া। রাজনীতি ছবিতে অভিনয় করেছেন শাকিব খান এবং অপু বিশ্বাস।

সাধারণত বছরের সেরা ছবিগুলোই ঈদে মুক্তি দেওয়া হয়। সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাণিজ্যিকভাবে সফল ছবি বাছতে গেলেই ঈদের ছবি চলে আসবে। বিগত দুই যুগে এমন অসংখ্য দর্শকপ্রিয় ছবি হয়েছে ঈদুল ফিতরে। তারমধ্য হতে নয়টি ছবি এখানে দেওয়া হলো:

কেয়ামত থেকে কেয়ামত

এক সময়ের বোম্বের ব্লুক বাস্টার ‘কেয়ামত সে কেয়ামত থেকে’র কপিরাইট এনে তরুণ পরিচালক সোহানুর রহমান সোহান নির্মাণ করেন ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবিটি। আনন্দমেলা সিনেমা লিমিটেডের বড় বাজেটের ছবিটিতে আত্মপ্রকাশ করেন নবাগত সালমান শাহ এবং মৌসুমী। ১৯৯৩ সালের অন্যতম সেরা ছবি তো বটেই, নব্বই দশকের অন্যতম জনপ্রিয় ছবি হয়ে উঠে এই ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবিটি।

শফি বিক্রমপুরী’র দেনমোহর

শফি বিক্রমপুরী পরিচালিত ছবিটি সালমান-মৌসুমী জুটির শেষ ছবি ছিল। এই জুটি অভিনীত প্রতিটি ছবি সুপারহিট হয়েছে। ‘দেনমোহর’ ছবিটিও কপিরাইট নিয়ে বানানো ছবি। দুই পরিবারের বিরোধের গল্প নিয়ে নির্মিত ছবিটি ১৯৯৫ সালের ঈদুল ফিতরে মুক্তি পেয়েছিল। ঈদের ছবিগুলোর মধ্যে সর্বাধিক ব্যবসা করে এই ছবিটি। বছরের অন্যতম হিট ছবি বলে দর্শকদের রায় পায় শ্রুতিমধুর গানের এই ছবিটি।

আরেক সফল ছবি স্বামী কেন আসামি

১৯৯৭ সালের ঈদুল ফিতরে মুক্তি পেয়ে বছরের সর্বোচ্চ ব্যবসা সফল ছবির তালিকায় ছিল ‘স্বামী কেন আসামি’। মনোয়ার খোকন পরিচালিত এই ছবির শিল্পী তালিকায় রয়েছেন জসীম, শাবানা, ঋতুপর্ণা, চাঙ্কি পান্ডে ও আহমেদ শরীফ। শাবানার নিজস্ব প্রযোজনা সংস্থা এসএস প্রডাক্টসন্স প্রতি বছরের ধারাবাহিকতায় ছবিটি নির্মাণ করে। তবে সেবার ভারতের সঙ্গে যৌথ প্রযোজনায় শামিল হয়েছিল এসএস প্রডাকশন্স।

হঠাৎ বৃষ্টি

১৯৯৯ সালের ঈদুল ফিতরে বিটিভিতে প্রিমিয়ার হলে ‘হঠাৎ বৃষ্টি’ ব্যাপকভাবে জনপ্রিয় হয়ে উঠে। পরে সিনেমা হলে মুক্তি পেলে ছবিটি ব্যাপক সাড়া পায়। বাসু চ্যাটার্জি পরিচালিত এই ছবিতে একজন তারকার জন্ম হয়। ফেরদৌস সারাদেশে পরিচিতি পান ‘হঠাৎ বৃষ্টি’ হিট হওয়ার কারণে। যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ছবিটিতে ফেরদৌসের বিপরীতে অভিনয় করেন কোলকাতার প্রিয়াংকা ত্রিবেদী।

বিয়ের ফুল

সে সময়ের রিয়াজ-শাবনূর-শাকিল খান অভিনীত ‘বিয়ের ফুল’ ১৯৯৯ সালের ঈদুল ফিতরের হিট ছবি। বলিউডের ‘দিওয়ানা’ ছবির গল্প নিয়ে এটি পরিচালনা করেছেন মতিন রহমান। ছবিটি সে সময় সুপারহিট ব্যবসা করে। পাশাপাশি ছবির গানগুলোও অত্যন্ত শ্রোতাপ্রিয়তা পেয়েছিল। রিয়াজ-শাবনূর জুটির অন্যতম আলোচিত ছবিটি ঈদের অনেক ছবির ভিড়ে ভালো স্থান করে নিতে সক্ষম হয় সে বছর ঈদে।

মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ব্যাচেলর

টিভি-সিনেমা মিলিয়ে ডজনখানেক তারকা ছিল মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর প্রথম ছবিতে। ‘ব্যাচেলর’ ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হয় ইমপ্রেস টেলিফিল্ম চ্যানেল আইতে। পরে বলাকা হলে মুক্তি পেয়ে টানা কয়েক মাস ধরে চলে। ছবির গানগুলো তরুণ দর্শক-শ্রোতাদের ঘরে ঘরে ব্যাপকভাবে ঠাঁই করে নেয়। এই ছবিতে অভিনয় করে অপি করিম ২০০৩ সালে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর জাতীয় পুরস্কার লাভ করেন।

দেবাশীষ বিশ্বাসের শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ

দীলিপ বিশ্বাসের পুত্র দেবাশীষ বিশ্বাসের পরিচালনায় অভিষেক ঘটে ২০০১ সালের এই সুপারহিট ছবির মাধ্যমে। রিয়াজের অভিনয় সমৃদ্ধ এই ছবিতে তার বিপরীতে ছিলেন শাবনূর। এই জুটির অন্যতম সেরা ছবি বলে বিবেচিত হয় ‘শশুরবাড়ি জিন্দাবাদ’। অনেক ছবির সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে নির্মাণকুশলার গুণে ছবিটি শ্রেষ্ঠত্ব লাভ করে সেবারের ঈদ উৎসবে। মহিলা দর্শকরা এটিকে সাদরে গ্রহণও করেন।

শাকিব খানের প্রথম ছবি এক টাকার বউ

শাকিব খানের প্রথম ছবি যেটি প্রচণ্ড ঢাকঢোল পিটিয়ে ঈদুল ফিতরে মুক্তি পায়। এই ছবিতে শাকিব খান বেশি পারিশ্রমিক নিয়ে আলোচিত হয়েছিলেন। মূলত শাকিব-শাবনূর জুটির ‘আমার প্রাণের স্বামী’র ছবির সফলতার ধারাবাহিকতায় ‘এক টাকার বউ’ নির্মাণ করা হয়েছিল। শিশুশিল্পী দীঘি অভিনীত ছবিটি মুক্তির পূর্বেই আলোচনার টেবিলে বাম্পার হিট করে!

নাম্বার ওয়ান শাকিব খান

২০১০ সালের ঈদুল ফিতরের সেরা ছবি হিসেবে পরিগণিত হয় ‘নাম্বার ওয়ান শাকিব খান’। মোহাম্মদ হোসেনের অন্যান্য ছবির মতো এটিরও শুটিং হয় থাইল্যান্ডে। নাম্বার ওয়ান কথাটির সঙ্গে শাকিব খানের পরিচয় মূলত এই ছবি থেকেই। এই ছবিতে অপু বিশ্বাস অভিনয় করেন শাকিবের বিপরীতে। ধামাকাদার-মশালা ছবি হিসেবে ‘নাম্বার ওয়ান শাকিব খান’কে দর্শকরা ফুল নাম্বার দেয় সে বছর।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...