জাপানের ঐতিহ্যবাহী রেস্তোরাঁর বেয়ারা বানর!

উত্তর টোকিওর এই রেস্তোরাঁয় বেশ কয়েক বছর ধরে ‘ইয়াত চ্যান’ এবং ‘ফুকো চ্যান’ নামের দুটি ম্যাকাক বানর বেয়ারা হিসেবে কাজ করছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ জাপানের একটি রেস্তোরাঁয় খাবার পরিবেশন করে ‘বানর বেয়ারা’। জাপানের ঐতিহ্যবাহী কায়াবুকিয়া টেভার্ন রেস্তোরাঁয় খেতে গিয়ে যদি আপনি ফরমাশ করেন তাহলে সময় মতো খাবার চলে আসবে। তবে সেই খাবার পরিবেশন করবে বানর!

সাধারণত রেস্তোরাঁয় যেসব খাবার পাওয়া যায়, এই রেস্তোরাঁতেও সেসব খাওয়ার পাওয়া যায়। তবে এই রেস্তোরাঁটির রয়েছে একটি দারুণ বিশেষত্ব, আর তা হলো আপনি খাবারের ফরমাশ দিতে চাইলে ওয়েটার হিসেবে কোন মানুষকে পাবেন না, এই দায়িত্বটা পালন করতে প্রস্তুত রয়েছে বানর দুটি!

সত্যিই আপনার অবাক হওয়া ছাড়া কোনো উপায় নেই। উত্তর টোকিওর এই রেস্তোরাঁয় বেশ কয়েক বছর ধরে ‘ইয়াত চ্যান’ এবং ‘ফুকো চ্যান’ নামের দুটি ম্যাকাক বানর বেয়ারা হিসেবে কাজ করছে। তারাই দক্ষতার সঙ্গে খাবার পরিবেশনের কাজ করে আসছে।

রেস্তোরাঁটির মালিক কাউরু আতসুকা তার পোষা বানর দুটিকে খুব আদর করেন। কাউরু আতসুকা জানান, ফুকো চ্যানের বয়স ১৭ বছর। আর ইয়াত চ্যান সেটার চেয়ে একটু ছোট। কাউরু আতসুকার তাদের প্রতিদিন মজুরিও দেন। মজুরি হিসেবে তারা পায় বড়সড় কলা। বানর দুটি এই মজুরিতে ভীষণ খুশি থাকে।

ওই রেস্তোরাঁয় প্রবেশ করে গ্রাহকরা আসনে বসলেই অন্যান্য রেস্তোরাঁর মতোই ‘ইয়াত চ্যান ‘বা ‘ফুকো চ্যান’ এসে হাজির হয়। মজার বিষয় হলো, তাদের পরনে রয়েছে সাধারণ ওয়েটারের মতোই পোশাক। এদের একজন কে কী খাবেন তার ফরমাশ নেয়, আর অপরজন নিপুণভাবে খাবার পরিবেশন করে যায়। এই রেস্তোরাঁয় যারাই খেতে আসে তাদের মূল আকর্ষণ থাকে এই বানর দুটির পরিবেশনা। অনেক অতিথি বানর দুটির টিপস অর্থাৎ উপহার হিসেবে বানরদুটোর জন্য নিয়ে আসেন ‘সয়াবিন’! এভাবেই বানরগুটি রেস্তোরাঁটির গ্রাহকদের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে গেছেন। যে কারণে বহু গ্রাহক ভিড় করেন রেস্তোরাঁটিতে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...