সৌদি আরবের ঐতিহাসিক জোয়াথা মসজিদ

সৌদি আরবের এই ঐতিহাসিক জোয়াথা মসজিদটি স্থাপিত হয় ৬২৯ খ্রিষ্টাব্দে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ শুভ সকাল। শুক্রবার, ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭ খৃস্টাব্দ, ২৪ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ১৬ জিলহজ্জ ১৪৩৮ হিজরি। দি ঢাকা টাইমস্ -এর পক্ষ থেকে সকলকে শুভ সকাল। আজ যাদের জন্মদিন তাদের সকলকে জানাই জন্মদিনের শুভেচ্ছা- শুভ জন্মদিন।

যে ছবিটি আপনারা দেখছেন সেটি সৌদি আরবের জোয়াথা মসজিদ। এটি একটি ঐতিহাসিক মসজিদ।

সৌদি আরবের এই ঐতিহাসিক জোয়াথা মসজিদটি স্থাপিত হয় ৬২৯ খ্রিষ্টাব্দে। ইসলামের ইতিহাসে এই মসজিদটির গুরুত্ব তাই অনেক। এই মসজিদটি সৌদির পূর্ব অঞ্চলের প্রথম মসজিদ ছিলো বলে ইতিহাসসূত্রে জানা যায়। মাটির তৈরি এই মসজিদটির তেমন কিছুই না থাকলেও এখনও এখানে নামাজ আদায় করা হয়। এই মসজিদের মূল কাঠামো বহু আগেই ধ্বংস হয়ে গেছে।

এই মসজিদটি সপ্তম শতাব্দিতে বনী আব্দুল কায়স গোত্রের হাতে নির্মিত হয়েছিল। যা ইসলামী যুগের আগে এবং তার আগেও সেখানে বসবাস করতো। এই মসজিদটিকে পূর্ব প্রদেশে নির্মিত প্রথম মসজিদ বলে মনে করা হয়ে থাকে।

বেশিরভাগ মসজিদ এর মূল কাঠামোই হারিয়ে গেছে। বাকি অংশও ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে। শুধুমাত্র ৫টি ছোট কাদা-ইট খিলান রয়েছে। দৃশ্যমান ধ্বংসাবশেষ সম্ভবত ৯ম শতাব্দীর। মসজিদটির বর্তমান কাঠামো নকশা সৌদি আরবের মাসমাক দুর্গের নকশা অনুরূপ করা হয়েছে বলে ইউকিপিডিয়া সূত্রে বলা হয়েছে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...