মঙ্গলগ্রহ সম্পর্কে কয়েকটি মজার তথ্য!

সৌরজগতের দ্বিতীয় এবং ক্ষুদ্রতম গ্রহ হলো মঙ্গল

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মঙ্গলগ্রহ নিয়ে আমাদের আগ্রহের যেনো শেষ নেই। মঙ্গলগ্রহ কেমন, মঙ্গলগ্রহে কি কি রয়েছে বা মঙ্গলগ্রহ নিয়ে এ যাবত কী কী গবেষণা হয়েছে, এমন নানা তথ্য জানার জন্য আমাদের আগ্রহের শেষ নেই। আজ জেনে নিন মঙ্গলগ্রহ সম্পর্কে কয়েকটি মজার তথ্য।

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র নাসায় চলছে মঙ্গলগ্রহে মানব অভিযান নিয়ে নানা আয়োজন। আগামী এক দশকের মধ্যেই মঙ্গলগ্রহে মানুষ পাঠাতে তৎপরতা চালাচ্ছে এই সংস্থাটি।

সম্প্রতি মঙ্গল অভিযানে যে গাড়ি ব্যবহার করা হবে, সেটি জনসমক্ষে প্রদর্শনীর জন্য নেওয়া হয় নিউইয়র্কের সি-এয়ার অ্যান্ড স্পেস মিউজিয়ামে।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, লাল গ্রহে প্রথম পা রাখতে চলেছেন যে ব্যক্তি, তিনি ইতিমধ্যেই আমাদের মাঝে জন্মগ্রহণও করেছেন। তার বয়স এখন ১০ থেকে ১৮ বছরের মধ্যে। সুতরাং তরুণ প্রজন্মের আগ্রহ এই লাল গ্রহের প্রতি একটু বেশি থাকাটাই স্বাভাবিক ব্যাপার।

আজ জেনে নিন মঙ্গলগ্রহ সম্পর্কে কিছু মজার তথ্য- যেগুলো আরেক অর্থে বিস্ময়করও বটে।

# মঙ্গলগ্রহে অবস্থিত সৌরজগতের সর্ববৃহৎ পর্বত। এই পর্বতটির নাম অলিম্পাস মন্স, এর উচ্চতা ২১ কিলোমিটার। পৃথিবীর মতোই মঙ্গলগ্রহেও রয়েছে ম্যাগনেটিক ফিল্ড।

# সৌরজগতের দ্বিতীয় এবং ক্ষুদ্রতম গ্রহ হলো মঙ্গল। ব্যাসার্ধের দিক দিয়ে এই গ্রহটি পৃথিবীর প্রায় অর্ধেক সমান। তবে পৃথিবীর ভূ-ত্বকের ৭০ শতাংশই জলাবদ্ধ থাকার কারণে এর ভূ-খণ্ডের পরিমাণ প্রায় পৃথিবীর সমান।

# মঙ্গলগ্রহের ইংরেজি নাম ‘মার্স’ শব্দটি এসেছে রোমান মাইথলজির যুদ্ধের দেবতার নাম হতে। ইতিপূর্বে জ্যোতির্বিদরা মঙ্গলগ্রহকে লাল গ্রহ বলেই ডাকতেন। মঙ্গলগ্রহের দু’টি উপগ্রহ ফোবোস এবং ডেইমোস। জোনাথন সুইফটের গালিভারস্‌ ট্রাভেলস্‌ বইতে নাম দু’টির প্রথম উল্লেখ করা হয়েছে। তবে মঙ্গলগ্রহের উপগ্রহ আবিষ্কারের ১৫১ বছর পূর্বেই গালিভারস্‌ ট্রাভেলস্‌ বইটি রচিত হয়।

# পৃথিবীর হিসাব মতে ৬৮৭ দিনে মঙ্গলগ্রহ সূর্যকে একবার প্রদক্ষিণ করে। পৃথিবীর মতোই মঙ্গলেও ঋতুবৈচিত্র্যের দেখা মেলে। কিন্তু মঙ্গলের একটি ঋতু পৃথিবীর তুলনায় দ্বিগুণ সময় স্থায়ী হয়।

# মঙ্গলগ্রহের ভূ-পৃষ্ঠের মাধ্যাকর্ষণ শক্তির পরিমাণ পৃথিবীর প্রায় ৩ ভাগের ১ ভাগ। অর্থাৎ পৃথিবীতে কারও ওজন যদি হয় ১০০ কেজি, মঙ্গলগ্রহে তা দাঁড়াবে ৩৮ কেজি। পৃথিবীর তুলনায় অন্তত ৩ গুণ বেশি উচ্চতায় লাফানো যায় মঙ্গলগ্রহে।

# মঙ্গলগ্রহে বায়ুমণ্ডল রয়েছে পৃথিবীর মতোই, রয়েছে পাহাড়, উপত্যকা, মরুভূমি এবং মেরুদেশীয় বরফও! পৃথিবী হতে সূর্যের যে আকৃতি দেখা যায়, মঙ্গলগ্রহ হতে তার অর্ধেক দেখায়।

# মঙ্গলগ্রহের কক্ষপথ ডিম্বাকৃতির হওয়ায় বছরের একটি নির্দিষ্ট সময় ধরে পুরো গ্রহে শক্তিশালী বালুঝড় তৈরি হয়ে থাকে। কখনওবা এই ঝড় একমাসেরও বেশি সময় স্থায়ী হয় বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...