The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় হইচই: এ কোন মাইকেল জ্যাকসন?

২০০৯ সালের ২৫ জুন প্রয়াত হয়েছেন মাইকেল জ্যাকসন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মাইকেল জ্যাকসনকে নিয়ে এখনও যেনো লেখালেখির শেষ নেই। তিনি যেনো অনন্তকাল ধরেই মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন। এবার মাইকেল জ্যাকসনকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় হইচই পড়ে গেছে। তবে এ কোন মাইকেল জ্যাকশন? আসুন বিষয়টি দেখে নেওয়া যাক।

সোশ্যাল মিডিয়ায় হইচই: এ কোন মাইকেল জ্যাকসন? 1

আজকের কথা নয়। সেই ২০০৯ সালের ২৫ জুন প্রয়াত হয়েছেন মাইকেল জ্যাকসন। তবে তাঁর ফ্যানরা মনে করেন, মাইকেল জ্যাকসন নামক কিংবদন্তির কোনো মৃত্যু নেই। অনাদি অনন্ত কাল মাইকেল জ্যাকশন ভক্তদের মাঝেই থাকবেন।

এটি ভাব কিংবা কল্পনার কথা নয়, সম্প্রতি টুইটারে পোস্ট করা এক ব্যক্তির ছবি নিয়ে তুমুল হইচই পড়ে গেছে প্রয়াত এই পপ সম্রাটের ভক্তদের মধ্যে। কারণ এখন আবার কিভাবে এলেন মাইকেল জ্যাকসন? সেই প্রশ্ন উঠে এসেছে।

বেশ কিছুদিন পূর্বে লর্ডস জাভালেটা নামের এক তরুণী টুইটার ইউজার বন্ধুদেরকে বোকা বানানোর জন্যই গুগল হতে খুঁজে পাওয়া মাইকেলরূপি এক তরুণের একটি ছবি পোস্ট করেন। ছবিটিতে যাকে দেখা যাচ্ছে যে, তাকে প্রয়াত পপ সম্রাটের ‘কপি’ বললে খুব কম বলা হবে, হুবহু মিল রয়েছে।

পপ সম্রাট মাইকেল জ্যাকসনের মতো দেখতে ছবির ওই ব্যক্তির নাম সার্জিও করটেজ। তিনি মাইকেল জ্যাকসনের অনুকারক বলেই নিজের পরিচয় দিয়ে থাকেন। পপ সম্রাটকে অনুকরণ করেই নাকি অনুষ্ঠান করা সার্জিওর পেশা!

সত্যিই এই যুবকটি মাইকেল জ্যাকসনের কার্বন কপি। তবে তাই বলে এমন মিল কি করে সম্ভব! সোশ্যাল মিডিয়ায় চরম হট্টগোল পড়ে গেছে ওই পোস্টটিকে ঘিরে। মাইকেলের গানের লিরিক উদ্ধার করে তাকে নিয়ে একের পর এক পোস্ট চলে আসছে। ছবির ওই ব্যক্তি গাড়ি চালাতে চালাতে সেলফি তুলেছেন, যা একান্তভাবেই বেআইনি। তাই তাকে অনেকেই ‘স্মুথ ক্রিমিনাল’ (মাইকেলের অন্যতম হিট একটি গানের নাম) বলে ডাকছেন অনেকেই। কেও কেও আবার তার কাছে পরলোকের হাল হকিকতও জানতে চেয়েছেন। মোট কথা মাইকেল জ্যাকসনের এই কার্বন কপি নিয়ে নেট দুনিয়ায় হইচই পড়ে গেছে। অনেক ভক্ত আবার দুধের সাধ ঘোলে মেটাতে চাইছেন! কিন্তু আসলেও কি তাই? মাইকেলের বিকল্প কী কখনও হতে পারে?

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...