মেক্সিকোর স্কুল শিক্ষকের এই ছবিটি এখন সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল!

এমন অনেক মানুষের জন্ম হয় এই পৃথিবীতে যাঁরা নীরবে নিভৃতে গড়ে যান পরবর্তী প্রজন্মের জন্য বাসযোগ্য পৃথিবী

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সম্প্রতি মেক্সিকোর স্কুল শিক্ষকের এই ছবিটি এখন সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল! ছবিটি এতো জনপ্রিয় হওয়ার আরও কারণ হলো এই ছবিটির পিছনে রয়েছে এক উদারতার অনন্য নিদর্শন। কী সেই উদারতা?

যুগ যুগ ধরে মানব সভ্যতা চলে আসছে। তবে এই চলে আসা মানব সভ্যতার মধ্যে কিছু মানুষ পৃথিবীর মানুষকে চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দেন উদারতার বিষয়গুলো। এমনই এক মানুষের গল্প রয়েছে আজ। যে মানুষটির এই ছবি আজ বিশ্বব্যাপী সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল! এই ছবিটির দৃশ্যটি নাড়া দিয়েছে গোটা বিশ্বকে।

এমন অনেক মানুষের জন্ম হয় এই পৃথিবীতে যাঁরা নীরবে নিভৃতে গড়ে যান পরবর্তী প্রজন্মের জন্য বাসযোগ্য পৃথিবী। আজকের এই কাহিনী মেক্সিকোর এক মানুষ গড়ার কারিগরের। এক স্কুল শিক্ষকের গল্প। যিনি একটি বাচ্চাকে কোলে নিয়ে ক্লাসে পাঠদান করছেন। বেশ কিছুদিন ধরেই এই ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। নানা জন নানা রকম মন্তব্য করেন ছবিটি নিয়ে।

কেও কেও বলেছিলেন, এই শিক্ষক তার বাচ্চাকে নিয়ে ক্লাস করছেন। জন্মের সময় ওর মা পৃথিবী ছেড়েছেন তাই। তবে প্রকৃত ঘটনা একেবারেই ভিন্ন। এর পেছনে রয়েছে এক স্কুল শিক্ষকের উদারতার অনন্য এক নিদর্শন। রয়েছে মজার এক ঘটনাও!

প্রকৃতপক্ষে এই ঘটনাটি গত বছরের। এই ছবিটির পেছনের গল্প হলো, শিশুটি আসলে ওই স্কুল শিক্ষকের এক ছাত্রীর। এতো ছোট বাচ্চাকে বাড়িতে রেখে ওই শিক্ষার্থীর পক্ষে ক্লাস করা কোনো মতেই সম্ভব নয়। তবে ওই শিক্ষক চান, ছাত্রীর শিক্ষাজীবন এভাবে যেনো নষ্ট না হয়। তাই তিনি ছাত্রীর বাচ্চাকে কোলে নিয়েই ক্লাস করছেন!

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, ওই মহান শিক্ষকের বসবাস মেক্সিকোর উপকূলীয় আকাপুলকো শহরে। ঘটনাটি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয় মেক্সিকোর এক পত্রিকাতে। ওই খবরে বলা হয়, তিনি ওই শহরটির একটি হাইস্কুলে শিক্ষকতা করেন। তারই এক ছাত্রী হাইস্কুল শেষ করার আগেই মা হয়েছেন। তাই ক্লাসে আসতে পারছিলেন না ওই ছাত্রী। অথচ তার কোর্স শেষ করাও জরুরি। তাই ক্লাসের সময় বাচ্চাটিকে দেখার দায়ভার শিক্ষক নিজেই নিয়ে নেন। মোইসেস রেইয়েস সান্দোভাল নামে এক ফেসবুক ব্যবহারকারী ওই ছবিটিসহ পোস্ট দেন। তার সেই পোস্ট থেকেই ছবিটি ভাইরাল হয় ওয়েব দুনিয়ায। এরপর ওই শিক্ষক সকলের হৃদয়ে স্থান করে নেন। তিনি রীতিমতো এক হিরো শিক্ষকে পরিণত হয়েছেন!

Advertisements
Loading...