বিজ্ঞানীদের চাঞ্চল্যকর তথ্য: ‘ভেড়া মানুষের মুখ চিনতে পারে’!

কেম্ব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা ভেড়াদেরকে বারাক ওবামাসহ বেশ কিছু বিখ্যাত মানুষের মুখ চেনাতে সক্ষম হয়েছেন বলে দাবি করেছেন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ভেড়া নিয়ে মানুষের গবেষণার যেনো শেষ নেই। এবার বিজ্ঞানীরা ভেড়া সম্পর্কে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য দিলেন। তারা বলেছেন, ‘ভেড়া মানুষের মুখ চিনতে পারে’!

ভেড়া নিয়ে মানুষের গবেষণার যেনো শেষ নেই। এবার ভেড়া নিয়ে গবেষণায় বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। এক গবেষণায় বেরিয়ে এসেছে, ভেড়া মানুষের মতোই পরিচিত মুখ দেখলে তা চিনতে পারে।

কেম্ব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা ভেড়াদেরকে বারাক ওবামাসহ বেশ কিছু বিখ্যাত মানুষের মুখ চেনাতে সক্ষম হয়েছেন বলে দাবি করেছেন।

প্রশিক্ষণের পর প্রশিক্ষিত ভেড়া বেশ কিছু ছবির মধ্যে হতে পরিচিত মুখের ছবিগুলো খুব সহজেই বেছে তুলে নিতে সক্ষম হয়।

এই পরীক্ষায় দেখা যায় যে, মানুষের মতো ভেড়ার মস্তিষ্কও মানুষের মুখ মনে রাখতে সক্ষম। এক গবেষণায় দেখা গেছে, একজন ভেড়া অন্য ভেড়াদের চিনতে পারে। এমনকি তাদের মনিবদেরও মুখ চেনে।

গবেষণায় প্রধান প্রফেসর জেনি মর্টন বলেছেন, ”তবে এবারের গবেষণায় আমরা দেখতে চেয়েছিলাম ভেড়া ছবি দেখে কাওকে চিনতে পারে কীনা সেটি,”। তিনি আরও বলেন, ”আমরা দেখতে চেয়েছিলাম মানুষের মতো পশুর মস্তিষ্ক দ্বিমাত্রিক বস্তুর ছবি ধরে রাখতে পারে কি না”

গবেষকরা ৮টি মেয়ে ভেড়াকে অপরিচিত ব্যক্তির একগুচ্ছ ছবি হতে ৪ জন উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্বের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়। তারা ঠিক ঠিক চিনতে পারলে তাদের পুরস্কার হিসাবে ভালো খেতে দেওয়া হয়।

দুটি কম্পিউটারের পর্দায় তাদের বিভিন্ন ছবি দেখানো হয়। প্রশিক্ষণ শেষে গবেষকরা দেখার চেষ্টা করেছেন যে, ওই ব্যক্তিদের মুখ বিভিন্ন কোণ হতে দেখানো হলে ভেড়া তা সহজেই চিনতে পারবে কি না। পরীক্ষায় সফলভাবে উত্তীর্ণ হয়ে ভেড়া প্রমাণ করেছে যে, যে ব্যক্তিদের সঙ্গে সে পরিচিত হয়েছে তাকে যে কোনো পাশ হতে দেখলেই সে চিনতে পারবে।

গবেষকরা দেখেছেন, এলোমেলো করে মিশিয়ে রাখা ছবির মধ্যে হতে শেখানো ৪ জনের মুখ সে ঠিক ঠিক চিহ্ণিত করে। বিজ্ঞানীরা এই পরীক্ষা হতে নিশ্চিত যে ভেড়া মানুষ এবং বানরের মতো মুখ চেনার ক্ষমতা রাখে। বর্তমানে গবেষকরা দেখতে চান, ভেড়া মানুষের মুখের বিভিন্ন অভিব্যক্তি ধরার ক্ষমতা রাখে কি না।

বিজ্ঞানীরা বলেছেন যে, স্নায়ুর ক্ষয়জনিত বিভিন্ন রোগ সম্পর্কে জানার ক্ষেত্রে এই গবেষণা ভবিষ্যতে একটা বিশেষ ভূমিকা রাখতে পারে। রয়্যাল সোসাইটি জার্নালে এই গবেষণার ফলাফলটি প্রকাশিত হয়েছে।

Advertisements
Loading...