ফিলিস্তিনিদের সাহায্য স্থগিত করলো আরব দেশগুলো!

এ বছরের শুরু হতেই এসব আরব ও উপসাগরীয় দেশগুলো ফিলিস্তিনিদের দেওয়া সাহায্য ছাড় দিতে অস্বীকার করে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মার্কিন সিদ্ধান্তের পর এবার ফিলিস্তিনিদের সাহায্য স্থগিত করলো আরব দেশগুলো! মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সাহায্য কমিয়ে দেওয়ায় এর প্রভাব পড়ছে আরব দেশগুলোতেও।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়, একাধিক সূত্র বলছে যে, মধ্যপ্রাচ্য নিয়ে যে মার্কিন শান্তি পরিকল্পনা রয়েছে তা ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস মেনে না নেওয়ার কারণে বেশ কয়েকটি আরব এবং উপসাগরীয় দেশ ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষকে তাদের দেওয়া সাহায্য আর ছাড় করছে না। ট্রাম্প প্রশাসনের ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের জন্যে দেওয়া মার্কিন সাহায্য অর্ধেকে নামিয়ের আনার ঘোষণা দেওয়ার পর পাল্টা সাহায্য বৃদ্ধি না করে বরং সেটি স্থগিত করে দিচ্ছে এসব আরব এবং উপসাগরীয় দেুংগলো। মিডিল ইস্ট মনিটর এই খবর দিলেও কোনো কোনো আরব এবং উপসাগরীয় দেশ ফিলিস্তিনিদের সাহায্য দিতে চাইছে না তা অবশ্য উল্লেখ করেনি।

প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, এ বছরের শুরু হতেই এসব আরব ও উপসাগরীয় দেশগুলো ফিলিস্তিনিদের দেওয়া সাহায্য ছাড় দিতে অস্বীকার করে। আরব সম্মেলনে এই ধরনের সাহায্য অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়ে তা অনুমোদন দেওয়ার পরও এখন তা লঙ্ঘন করছে এইসব দেশ। ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ এখনও সাহায্যের আশায় অপেক্ষা করছে। কারণ হলো এই ধরনের সাহায্য না পেলে ৫০ লাখেরও বেশি ফিলিস্তিন শরণার্থীদের জন্যে মৌলিক চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

উল্লেখ্য, সৌদি আরব ফিলিস্তিন প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে হুঁশিয়ার করে বলেছিল যে, ট্রাম্পের মধ্যপ্রাচ্য শান্তি প্রক্রিয়া মেনে না নিলে তার শাসনকাল শেষ হয়ে যাবে। ওই শান্তি প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণার পর মুসলিম, খ্রিস্টান নেতা ছাড়াও বিশ্বের অধিকাংশ দেশ এর বিরোধিতা ও সমালোচনা করে। তবে সৌদি আরবের নেতৃত্বে মিশর, আমিরাত, বাহরাইনসহ বেশ কয়েকটি আরব এবং উপসাগরীয় দেশ ফিলিস্তিনিদের বিপক্ষে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মধ্যপ্রাচ্য নীতিকেই সমর্থন করছে যা ইসরায়েলের কাছেও প্রশংসিত হয়েছে।

Advertisements
Loading...