সৌদি আরবকে ‘শক থেরাপি’ দেওয়া প্রয়োজন

‘আপনার সারাদেহে ক্যান্সার ছড়িয়ে পড়েছে- দূর্নীতির ক্যান্সার। আপনার তখন কেমো প্রয়োজন। কেমোর শক না হলে তখন ক্যান্সার সারাদেহে ছড়িয়ে পড়বে।’

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সৌদি আরবকে ‘শক থেরাপি’ দেওয়া প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। ওয়াশিংটন পোস্টকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এই মন্তব্য করেন।

দুর্নীতির মূলোৎপাটন করতে সৌদি আরবের ‘শক থেরাপি’ প্রয়োজন- এমন মন্তব্য করেছেন দেশটির যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। গত মঙ্গলবার রাতে ওয়াশিংটন পোস্টকে দেওয়া এক একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি এই মন্তব্য করেন।

যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান বলেছেন, ‘আপনার সারাদেহে ক্যান্সার ছড়িয়ে পড়েছে- দূর্নীতির ক্যান্সার। আপনার তখন কেমো প্রয়োজন। কেমোর শক না হলে তখন ক্যান্সার সারাদেহে ছড়িয়ে পড়বে।’

গত সরকারের বহুল আলোচিত দূর্নীতিবিরোধী অভিযান প্রসঙ্গে মোহাম্মদ বিন সালমান বলেন, ‘এই লুটপাট বন্ধ করতে না পারলে সৌদি তার বাজেট লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে পারতো না।’

উল্লেখ্য, গত বছরের নভেম্বরে যুবরাজ মোহাম্মদের নির্দেশে রাজপরিবারের সদস্য, প্রিন্স, শীর্ষ কর্মকর্তা এবং ব্যবসায়ীসহ অন্তত শতাধিক ব্যক্তিকে আটক করা হয়। এদের অনেককেই রাখা হয় রিয়াদের বিলাসবহুল রিৎজ হোটেলে। শীর্ষ ধনী ও বহুজাতিক কোম্পানিতে বিনিয়োগকারী প্রিন্স আলওয়ালিদ বিন তালালসহ অনেককেই পরে অবশ্য অর্থের বিনিময়ে ছেড়ে দেওয়া হয়। এসব ব্যক্তিদের কাছে থেকে ১০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি অর্থ আদায় করা হয়েছে। এই অর্থবছরে সৌদি বাজেট ঘাটতি ধরা হয়েছে ৫২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। দুর্নীতির অভিযোগে আটক ব্যক্তিদের কাছ থেকে আদায় করা শত বিলিয়ন ডলার বর্তমান সময়ে সৌদিকে সেই বাজেট ঘাটতি হতে উদ্ধার করেছে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...