অতিরিক্ত কাজের চাপের টেনশন কমাতে যা করবেন

মানুষ অনেক সময় অতিরিক্ত কাজের চাপে নিজের উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে।

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ অফিস বা যেকোন কর্মক্ষেত্রে আপনাকে হয়ত অতিরিক্ত কাজ করতে হয়। মানুষ অনেক সময় অতিরিক্ত কাজের চাপে নিজের উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। ধরুন আপনাকে আজ বিকেলের মধ্যেই একটি রিপোর্ট তৈরি করতে হবে সেই সাথে আপনার দৈনন্দিন অফিসিয়াল কাজ তো আছেই। সেই সাথে মাঝে আবার অফিসের কাজে একটু বাইরে যেতে হবে।

তবে সঠিকভাবে কাজ করলে হয়ত আপনি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই সব কাজ সম্পুর্ণ করতে পারবেন। কিন্তু মনের মধ্যে একটি টেনশন কাজ করছে কিভাবে এত কম সময়ের মধ্যে আপনি এতগুলো কাজ শেষ করবেন? এই যে আপনার মাথার মধ্যে একবার টেনশন ঢুকে গেল, ব্যাচ, এখন আপনার কাজের গতি আগের থেকে ২০-৩০% কমে যাবে। আজ আমরা আলোচনা করব কিভাবে এত প্রেশারের মধ্যেও আপনি নিজেকে ফিট রাখবেন।

১। পছন্দের গান শুনুনঃ

গান হচ্ছে মন ভাল করার একটি অন্যতম উপায়। তবে সেই গান হতে হবে আপনার পছন্দনীয়। অতিরিক্ত কাজের চাপে যখন আপনি অসস্তি বোধ করবেন, তখন আপনার পছন্দের কয়েকটি গান শুনুন দেখবেন আপনার মন এবং শরীর আবার আগের মত কাজের উপযোগী হয়ে উঠেছে। কারণ পছন্দের মিউজিক বা গান আপনার মনকে দারুনভাবে পুলোকিত করে।

২। কফি বা চা পান করুনঃ

অতিরিক্ত কাজের টেনশন কমাতে বা কফি বা চা অনেক ভাল কাজ করে। কাজ করতে করতে যখন দেখবেন কাজের প্রতি মনযোগ হারিয়ে যাচ্ছে বা মাথার মধ্যে অন্য টেনশন কাজ করছে যার ফলে ঠিক মত কাজ করতে পারছেন না, তখন এক কাপ চা বা কফি পান করুন। কিছুক্ষণের মধ্যেই আবার ফ্রেশনেস অনুভুতি ফিরে পাবেন।

৩। প্রিয়জনের সাথে কথা বলুনঃ

মানসিক চাপ কমাতে প্রিয়জনের সাথে কথা বলুন। কাজ করতে করতে যখন আপনি অসস্তি বোধ করবেন বা খুব মানসিক চাপ অনুভব করবেন, এমন সময় আপনার প্রিয়জনের সাথে কিছুক্ষণ ভালভাবে ফোনে কথা বলুন। তবে সাবধান কাজের প্রেশারে আপনার মেজাজ কিছুটা খারাপ হয়ে থাকতে পারে। তাই কথা বলার সময় প্রিয়জনের সাথে এমন কোন বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন না যা আপনার মেজাজ আরো খারাপ করে ফেলে।

৪। কাজের গুরুত্ব অনু্যায়ী সিরিয়াল করুনঃ

অনেকগুলো কাজের মধ্যে সব কাজই সমান গুরুত্বপূর্ণ নয়। তাই কাজের গুরুত্ব অনুযায়ী সেগুলো নির্ধারণ করুন। যে কাজটি আপনার আগে শেষ করা দরকার সেই কাজটি আগে করুন। তাহলে বেশি মানসিক চাপে পড়বেন না। এভাবে কাজ করলে দিন শেষে দেখবেন আপনার সব কাজই সম্পুর্ণ হয়ে গেছে।

Advertisements
Loading...