তুরস্কের ৫৫৭ বছরের প্রাচীন ছাদহীন মসজিদ!

এই মসজিদটির উন্মুক্ত ছাদ দিয়ে কোমল বায়ু মুসল্লিদের শিহরিত করে!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ছাদহীন মসজিদ, দেখতে অনেকটা ঈদগার মতোই। এই অভিনব মসজিদ তুরস্কের উত্তর-পূর্ব কার্ডগার এলাকায় অবস্থিত। এই মসজিদটি ৫৫৭ বছর সময় ধরে ছাদহীন অবস্থায় রয়েছে!

কখনোই এই মসজিদটিতে ছাদ নির্মাণের কোনো পরিকল্পনা বা ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। ছাদহীন অবস্থাতেই ওই মসজিদেই সেখানকার মুসল্লিরা নামাজ আদায় করছেন।

কী কারণে এমন ছাদহীন? বলা হয়েছে, এই মসজিদটির উন্মুক্ত ছাদ দিয়ে কোমল বায়ু মুসল্লিদের শিহরিত করে। মসজিদটির ব্যতিক্রমি দুটি মিনার মসজিদটিকে একটি আধ্যাত্মিক রূপ দিয়েছে। মসজিদের মেঝেটি পুরো সবুজাভ ঘাসে আচ্ছাদিত। তবে মসজিদের চারপাশে সামান্য উঁচু করে ঘেরা দেওয়া আছে। তুরস্কের গোমুশ খানা ও ট্রাভজোনের প্রাদেশিক সীমানায় এই মসজিদটি অবস্থিত। সমুদ্রপৃষ্ঠ হতে এই মসজিদটির উচ্চতা ৮০০ মিটার উঁচুতে।

জানা গেছে, প্রতি গ্রীষ্মেই ভ্রমণপ্রেমীরা পরিবারসহ ট্র্যাভজোন, জার্সন, গোমশ খানা, কার্ডগা রিসোর্টে সফর করে থাকেন। ৫৫৭ বছরের প্রাচীন এবং ঐতিহাসিক এই মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করতে পছন্দ করেন ভ্রমণপ্রেমীরা।

ছাদহীন মসজিদে মুসল্লিদের নামাজ আদায় কিভাবে করা হয়? এই বিষয়ে মসজিদের ইমাম আকিফ ইয়াজজি বলেন, গ্রীষ্মের মাসগুলিতে এই অঞ্চলের ‘দারুল ইফতা’ মসজিদের জন্য একজন সাময়িকভাবে ইমাম নিযুক্ত করে দেয়।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...