The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

আস্ত একটা সি বিচ রয়েছে এমন এক প্রমোদতরীর গল্প!

সুইমিং পুল, বাগান, পানশালা, রাজকীয় স্যুট, রেস্তোরাঁ, হেলিপ্যাড আর.. সবই আছে এটিতে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ পৃথিবীতে নানা প্রমোদতরী রয়েছে। সেইসব প্রমোদতরী নিয়ে মানুষের আগ্রহের শেষ নেই। কিন্তু আজ এমন এক প্রমোদতরীর গল্প রয়েছে যে প্রমোদতরীতে রয়েছে আস্ত একটা সি বিচ!

আস্ত একটা সি বিচ রয়েছে এমন এক প্রমোদতরীর গল্প! 1

পৃথিবীতে নানা প্রমোদতরী রয়েছে। সেইসব প্রমোদতরী নিয়ে মানুষের আগ্রহের শেষ নেই। কিন্তু আজ এমন এক প্রমোদতরীর গল্প রয়েছে যে প্রমোদতরীতে রয়েছে আস্ত একটা সি বিচ! এমন কথা আগে কখনও শোনাও যায়নি। কারণ পৃথিবীতে এ যাবতকাল যেসব প্রমোদতরীর খবর আমরা পেয়েছি সেগুলো চাকচিক্যতম হলেও এই প্রমোদতরীর মতো বিলাসী ভ্রমণ হবে না। এটি সত্যিই একেবারে ব্যতিক্রমি একটি প্রমোদতরী।

যাত্রীদের বিনোদনের জন্য কোন কোন প্রমোদতরীতে বা বিলাশবহুল জাহাজে কী কী সুবিধা থাকতে পারে তা কী আপনি জানেন? সুইমিং পুল, বাগান, পানশালা, রাজকীয় স্যুট, রেস্তোরাঁ, হেলিপ্যাড আর…কী…বা ভাবছেন আর কীই বা থাকতে পারে! যদি আপনি শোনেন যে যাত্রীদের বিনোদনের জন্য জাহাজে রয়েছে একটা আস্ত বিচ! তাহলে আপনি আশ্চর্য না হয়ে পারবেন না। এমনই এক প্রমোদতরীর গল্প রয়েছে আজ।

বর্তমান সময়ে কোনো কিছুই যেনো অসম্ভব নয়। নরওয়ের বিখ্যাত ইন্টিরিয়র ডিজাইন সংস্থা ‘হেরেড ডিজাইন’-এর তৈরি প্রমোদতরীটির নাম হলো ১০৮এম। মূলত এই জাহাজটি একটি বিলাশবহুল ইয়াট। এটি লম্বায় ১০৮ মিটার (প্রায় ৩৫৪ ফুট)। এই ইয়াটে কৃত্তিম সি বিচটির সঙ্গে যে কোনও সাধারণ বিচের পার্থক্য রয়েছে। যেমন এটি মাঝ সমুদ্রে ভাসমান বিচ। এই ইয়াটের পিছনের দিকটাই এই বিচটি তৈরি করার জন্য জাহাজের পিছন দিক নিচু করে সমুদ্রের পানির সঙ্গে একেবারে মিশিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এই ইয়াটে বিনোদনে শক্তি যোগানোর জন্য রয়েছে ৩ হাজার বর্গফুটের সোলার প্যানেল। এই ইয়াটের দোতলায় রয়েছে একটি খোলামেলা সাজানো বাগান এবং সেই রয়েছে একটি সুইমিং পুলও। তাছাড়াও এই ইয়াটে যাত্রীদের স্বাচ্ছন্দের জন্য কাঁচে মোড়া বিশাল মাপের একটি হল ঘরও রয়েছে। সেই সঙ্গে সেখানে রয়েছে পানশালা, রেস্তোরাঁর মতো একাধিক বিলাসবহুল আয়োজন। এই ইয়াটে রয়েছে একটি হেলিপ্যাডও। তাহলে আপনার আর কী চাই বলুন! এমন একটি বিলাসবহুল ইয়াটে ভ্রমণ করার জন্য যে কেও পাগল হতেই পারেন, তাতে দোষের কিছু নেই। তবে বিলাসবহুল এই প্রমোদতরীতে আপনাকে ঘুরতে হলে তেমনিভাবেই আপনাকে অর্থ গুনতে হবে যা দুনিয়ার অন্য যে কোনো ভ্রমণের থেকে একটু বেশি হবে তাতে সন্দেহ নেই।

Loading...