The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মসজিদে বর্বর হামলা সম্পর্কে অনন্ত জলিলের স্ট্যাটস

আল্লাহ্তাআলা নিহতদের শহীদি মর্যাদা দান করুন এবং উনাদের জান্নাতুল ফেরদাউস দান করুন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে নামাজরত অবস্থায় মুসল্লিদের ওপর শেতাঙ্গ বন্দুকধারীর বর্বর হামলার ঘটনায় বিশ্ব ব্যাপী নিন্দার ঝড় শুরু হয়েছে। এই বিষয়ে নায়ক ও পরিচালক অনন্ত জলিলও এই হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

মসজিদে বর্বর হামলা সম্পর্কে অনন্ত জলিলের স্ট্যাটস 1

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে নামাজরত অবস্থায় মুসল্লিদের ওপর শেতাঙ্গ বন্দুকধারীর বর্বর হামলার ঘটনায় বিশ্ব ব্যাপী নিন্দার ঝড় শুরু হয়েছে। এই বিষয়ে নায়ক ও পরিচালক অনন্ত জলিলও এই হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

শুক্রবার রাতে ফেসবুক স্ট্যাটসে অনন্ত জলিল লিখেছেন যে, ‘সকাল থেকে এখন পর্যন্ত আমি স্তব্ধ এবং বাকরুদ্ধ। আমার এখনও বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে যে, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ শহরের দুটি মসজিদে সন্ত্রাসীদের হামলায় এখন পর্যন্ত ৫৪ জন (প্রকৃত পক্ষে ৪৯ জন) নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

এমন সংবাদ যেনো আমি কল্পনাও করতে পারি না। আল্লাহ্তাআলা নিহতদের শহীদি মর্যাদা দান করুন এবং উনাদের জান্নাতুল ফেরদাউস দান করুন। আমরা সবাই নিহত মুসল্লিদের জন্য দোওয়া করবো এবং তাদের পরিবারের জন্যও দোওয়া করবো। তারা যেনো এই শোক কাটিয়ে উঠতে পারেন।

জলিল আরও লিখেন, নিউজিল্যান্ডের মতো শান্তিপ্রিয় দেশে এমন সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় আমাদের জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রতিটি সদস্যকে আল্লাহ নিরাপদে রেখেছেন, সেজন্য আমি শুকরিয়া আদায় করি।

সন্ত্রাসকে বর্জনের আহবান জানিয়েছেন জলিল লিখেছেন, মানুষ যে ধর্মেরই হোক না কেনো, এই ধরনের হামলাকে আমরা কেওই সমর্থন করতে পারি না। হোক তা অন্য ধর্ম বা মুসলমানদের বিপক্ষে। কারণ হলো সবাই মানুষ, সব ধর্মের মানুষই একসঙ্গে সুখে শান্তিতে বসবাস করবে- এটিই আমাদের সবার কাম্য। সন্ত্রাসীরা কোনো দেশের হতে পারে না, কোনো ধর্মেরও হতে পারে না।’

নিউজিল্যান্ডের শুক্রবারের ওই সন্ত্রাসী ঘটনার পর সমগ্র বিশ্বের নেতৃবৃন্দ নিন্দা জানিয়েছেন। তারা নিউজিল্যান্ডের পাশে থেকে সন্ত্রাস মোকাবেলায় কাজ করার অঙ্গীকার করেছেন।

উল্লেখ্য, শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে বন্দুকধারীদের গুলিতে ২ বাংলাদেশীসহ ৪৯ জন মারা যান। আহত হয়েছেন অন্তত ৪৮জন। এই সন্ত্রাসী হামলার সময় আল নূর মসজিদে নামাজ পড়তে যাচ্ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সদস্যরাও। তারা অল্পের থেকে প্রাণে রক্ষা পান। বর্তমানে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল তাদের পরবর্তী খেলা বাতিল করে বাংলাদেশে ফিরেছেন।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...