The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

গোয়েন্দা নজরদারিতে রয়েছেন নায়িকা সিমলা

কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের একটি টিম নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে পলাশের বাড়িতে গিয়ে তার মা-বাবা ও তার আত্মীয় স্বজনদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সম্প্রতি চট্রগ্রামে বাংলাদেশ বিমানের ছিনতাই চেষ্টার ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রাণ হারাতে হয় পলাশকে। তবে বিমান ছিনতাইয়ের বিষয়টির থেকেও বেশি আলোচনা হয় ঢাকাই চলচ্চিত্রের চিত্রনায়িকা সিমলাকে নিয়ে।

গোয়েন্দা নজরদারিতে রয়েছেন নায়িকা সিমলা 1

ওই ঘটনায় নিহত পলাশের সাবেক স্ত্রী চিত্রনায়িকা সিমলাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের পরিদর্শক রাজেশ বড়ুয়া।

রাজেশ বড়ুয়া জানিয়েছেন, ‘দুই-একদিনের মধ্যে পলাশের সাবেক স্ত্রী চিত্রনায়িকা সিমলাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। যে কারণে তাকে গোয়েন্দা নজরদারিতে রাখা হয়েছে।’

গত শনিবার দিবাগত রাতে মামলার তদন্তকারী সংস্থা চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের (সিএমপির) কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের একটি টিম নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে পলাশের বাড়িতে গিয়ে তার মা-বাবা ও তার আত্মীয় স্বজনদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছে।

এই বিষয়ে রাজেশ বড়ুয়া জানিয়েছেন, রাত ৮টার দিকে তার নেতৃত্বে একটি দল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের দুধঘাটা এলাকায় নিহত পলাশের বাড়িতে যাওয়া হয়। পলাশের বাবা পিয়ার জাহান, মা রেনু বেগম, চাচা দ্বীন ইসলাম ও আত্মীয়স্বজন এবং প্রতিবেশীসহ ১০ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তাছাড়া পলাশের বেড়ে ওঠা, পড়াশোনা, বিয়েসহ নানা বিষয়ে ঘণ্টা দুই জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় বলে সংবাদ মাধ্যমকে জানান এই কর্মকর্তা।

ছিনতাইয়ের চেষ্টার শিকার বিমানের পাইলট, ফার্স্ট কর্মকর্তা ও চারজন কেবিন ক্রুকে ইতিমধ্যেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি বিকেলে বাংলাদেশ বিমানের বিজি-১৪৭ নম্বর ফ্লাইটটি ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে পলাশ। পরে পাইলট বিমানটি চট্টগ্রাম শাহ আমানত বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করে। এরপর যৌথ বাহিনীর অভিযানে জিম্মি ঘটনার অবসান ঘটে। অভিযানে মৃত্যু হয় পলাশের। সিমলাকে আগেও একবার জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...