The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

একজন হতভাগ্য মানুষের নাম এডওয়ার্ড মরডেক

এই মানুষটার মাথার পেছনেও আর একটা চেহারার অস্তিত্ব বিদ্যমান!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ এডওয়ার্ড মরডেক একজন ইংরেজ অভিজাত মানুষ। যাকে বলা যায় ঊনিশ শতকে জন্ম নেওয়া একজন হতভাগ্য মানুষ। যিনি দু’টি মাথা নিয়ে জন্মেছিলেন।

একজন হতভাগ্য মানুষের নাম এডওয়ার্ড মরডেক 1

এডওয়ার্ড মরডেক একজন ইংরেজ অভিজাত মানুষ। যাকে বলা যায় ঊনিশ শতকে জন্ম নেওয়া একজন হতভাগ্য মানুষ। যিনি দু’টি মাথা নিয়ে জন্মেছিলেন।

সাধারণ মানুষের চেহারা কেবল সামনের দিকেই দেখা যায়, অথচ এই মানুষটার মাথার পেছনেও আর একটা চেহারার অস্তিত্ব বিদ্যমান। সেই অস্তিত্বটা হাসতো, কাঁদতো ও উদ্ভট উদ্ভট শব্দও করতো এবং এডওয়ার্ডের কোনো রকম কন্ট্রোল ছিলো না ওই মাথাটার ওপর! সে নিজেই যেনো একটা আলাদা অস্তিত্ব হয়ে উঠেছিলো।

এডওয়ার্ডের ধারণা ছিলো তার এই বিকল্প মাথাটা আসলে ” শয়তানের মাথা”। রাতের বেলা যখন এডওয়ার্ড ঘুমাতে যেতেন, তখন ওই বাড়তি জিনিসটা নাকি ফিসফিস করে তাকে কিছু একটা বলতো! ডাক্তারদের বার বার অনুরোধ করা হয়েছিলো বাড়তি মাথাটা কেটে ফেলার জন্য, তবে কেও সাহস করে উঠতে পারেনি।

এডওয়ার্ড মরডেক মাত্র ২৩ বছর বয়সে যন্ত্রনা সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করে বসেন! তার অবস্থা অনেকটা পেসকেল পিনন এবং চেং টিজো পিং এর মতোই ছিলো।

দ্য বুক অফ লিস্টস-এর ১৯৭৬ সালের প্রকাশনায় মারডেক ও পিনন উভয়ই পৃথিবীর ১০ জন মানুষের মধ্যে স্থান করে নিয়েছিলেন যাদের অতিরিক্ত চেহারা বা অঙ্গ রয়েছে।

একজন হতভাগ্য মানুষের নাম এডওয়ার্ড মরডেক 2

এডওয়ার্ড মরডেকের এই অবস্থা প্রতিষ্ঠা করা খুব কঠিন কারণ হলো তার জন্ম ও মৃত্যুর কোনো নথি-পত্র আজও পাওয়া যায়নি এবং তার আত্মহত্যা ও আত্মহত্যার স্থান নিয়েও দ্বন্দ্ব রয়েছে। তার ওই ঘটনার অধিকাংশ মৌখিকভাবে প্রচলিত।

এডওয়ার্ড মরডেক ১৮৯৬ সালে অ্যানোমালিস এন্ড কিউরিওসিটিস মেডিসিনি নামক একটি নিবন্ধে তার সম্পর্কে লেখার পর তিনি বর্তমানে অনেক নাটক, লেখা ও গানের বিষয়বস্তুতে পরিণত হন। যাই হোক, কিছু কিছু সময় তার এই গল্পকে অনেকেই মিথ্যা হিসেবে আখ্যায়িত করেন। কারণ হলো তাদের মতে, ঘটনাটি ছিল অনেকটা কাল্পনিক এবং এর কোনো মেডিক্যাল ব্যাখ্যা ছিল না- অনেক বছর ধরে লোকমুখে প্রচলিত ছিল বলে এটি সত্য ঘটনার মতো মনে হয়েছে।

টম ওয়েটস অ্যালাইস অ্যালবামে এডওয়ার্ড মারডেককে নিয়ে একটি গান লিখেছিলেন যার শিরোনাম হলো, “পুওর এডওয়ার্ড”।

Loading...