The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

বর্ষার মেকআপ কেমন হবে

বর্ষার সময় বাতাসের আর্দ্রতার পরিমাণ অন্যান্য ঋতুর তুলনায় বেশি থাকে যার ফলে মেকআপ করার ক্ষেত্রে নানাবিধ জটিলতার সম্মুখীন হতে হয় সকলেরই

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বর্ষার সময় আমাদের ত্বকের যত্ন নেয়া অন্যান্য সময় থেকে অথবা অন্যান্য ঋতু থেকে অতীব কষ্টদায়ক হয়ে থাকে। বর্ষার মেকআপ কেমন হবে তা আজ জেনে নিন।

বর্ষার মেকআপ কেমন হবে 1

বর্ষার সময় বাতাসের আর্দ্রতার পরিমাণ অন্যান্য ঋতুর তুলনায় বেশি থাকে যার ফলে মেকআপ করার ক্ষেত্রে নানাবিধ জটিলতার সম্মুখীন হতে হয় সকলেরই। এই সময় বাতাসের আদ্রতা বৃদ্ধির ফলে মেকআপ গলে যাওয়ার আশঙ্কা কয়েক গুণ বেড়ে যায়। সে ক্ষেত্রে অনেক কিশোরী হালকা পাউডার মেকআপ হিসেবে ব্যবহার করে থাকেন যা খুবই কার্যকর হয়ে থাকে। এমন সময় মেকআপ এর বিকল্প হিসেবে অনেকেই স্পঞ্জ ব্যবহার করে থাকে যা বর্ষাকালে ত্বকের মেকআপ বজায় রাখার জন্য খুবই কার্যকর ভূমিকা পালন করে। স্পঞ্জ ব্যবহার করার ক্ষেত্রে আমাদের লক্ষ্য রাখতে হবে যাতে করে স্পঞ্জের একদিকে শুকনো পাউডার অপরদিকে ভেজা থাকে। এই শুকনো ও ভেজা দিকের ফলে আমরা আমাদের প্রয়োজনমতো খুব সহজেই ত্বকের চাহিদা মোতাবেক স্পঞ্জ ব্যবহার করতে পারব।

কিশোরীদের চোখ যেন তাদের মনের কথা প্রকাশ করে থাকে তাই সেই চোখকে রাঙিয়ে তোলার জন্য কতই না প্রসাধনী ও সুন্দরের চাহিদা প্রকাশিত হয় নারীর মনে। তাই সকল কিশোরীরাই চায় তাদের চোখকে খুবই আকর্ষণীয় ও সুন্দর করে তুলতে। যা বর্ষাকালীন সময় খুব সহজেই করা সম্ভব। সে ক্ষেত্রে চোখে ব্যবহৃত সকল প্রসাধনী যার মধ্যে লাইনার, কাজল, মাস্কারা ইত্যাদি জিনিস যেন ওয়াটারপ্রুফ হয় সেদিকে নজরদারি বৃদ্ধি করুন। চোখ সুন্দর করার জন্য অবশ্যই উজ্জ্বল গোলাপী রং, নীল রং ব্যবহার করা যেতে পারে। চোখে ব্যবহৃত সকল প্রশাসনিক যাতে ওয়াটারপ্রুফ হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে তার ফলে মেকআপ নষ্ট হয়ে যাওয়া এবং গলে যাওয়ার আশংকা থাকে না।

নিজেকে একটু রোমান্টিক সাজে সাজিয়ে তুলতে ব্যবহার করতে হবে পাউডার বেসড ব্লাশার। সে ক্ষেত্রে হালকা রঙের ব্লাশার ব্যবহার করা খুবই শ্রেয়। পাউডার বেসড ব্লাশার ব্যবহার করার ক্ষেত্রে তা যেন আমাদের ড্রেসের সাথে ম্যাচ করে থাকে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। পাউডার বেসড ব্লাশার ব্যবহার করার সময় তা যেন মুখের মধ্যে ভালোভাবে মিশিয়ে নেয়া হয় সে দিকে সকলের লক্ষ্য রাখতে হবে তা না হলে বর্ষায় হিতে বিপরীত হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

বর্ষার সময় চুলের যত্নের ক্ষেত্রে তদারকি বাড়িয়ে দিন। বর্ষায় চুলকে যতটা সম্ভব বেঁধে রাখুন চুলগুলো এলোমেলো অথবা খোলা না রাখাই শ্রেয়। বর্ষার সময় চুল ভিজে থাকার সম্ভাবনা বেশি থাকে এর ফলে খোলা চূলকে অবিন্যেস্ত দেখা যেতে পারে যার ফলে আপনার চুল হারাতে পারে তার আকাঙ্খিত সৌন্দর্য। চুলের রক্ষায় চুলকে পনি টেল অথবা ঘাড় খোপা করে সুন্দর করে বেঁধে নিতে পারেন যার ফলে আপনার চুল বাতাসের আদ্রতা থেকে রক্ষা পাবে এবং থাকবে ঝর ঝরে সারাক্ষণ। বর্ষাকালে চুলের জেল ব্যবহার না করা খুবই উপকারি। বর্ষায় চুলে এ সকল প্রসাধনী ব্যবহারের ফলে চুলে খুশকি হওয়ার পাশাপাশি চুল উঠে যাওয়ার সম্ভাবনা তীব্র থেকে তীব্রতর হয়। প্রতিদিন নিয়ম করে চুল পরিষ্কার করা সকলের বাঞ্ছনীয় যা আমাদের চূলকে পরে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করে এই বর্ষায়।

Loading...