The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

যখন চিন্তার বিষয় স্মার্টফোন

ইলেকট্রনিক জিনিষ গরম হবে সেটিই স্বাভাবিক ব্যাপার

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ অনেকটা চাল, ডাল, নুন তেলের মতোই স্মার্টফোন ছাড়া আমাদের একটি মুহূর্তও চলে না। প্রতিটি কাজের জন্যই প্রয়োজন হয় স্মার্টফোনের। তবে কখনও কখনও এই ফোন হয় চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

যখন চিন্তার বিষয় স্মার্টফোন 1

যেহেতু এই স্মার্ট ডিভাইসটি আপনার অনেক প্রয়োজনে লাগে, তাই এটির রক্ষণাবেক্ষণ করাও আপনার নিজের দায়িত্ব। আপনার ফোনটি গরম বেশি হয় কি না? আপনার ফোনটির চার্জ ঠিক মতো থাকে কি না? ব্রাউজিং ঠিকঠাক হচ্ছে কি না? ইত্যাদি বিষয়গুলো রীতিমতো আপনাকে রাখতে হবে আপনাকেই। স্মার্টফোন যে কারণগুলোতে অতিরিক্ত গরম হতে পারে তেমন কয়েকটি কারণ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে আজকের এই প্রতিবেদনটিতে।

যেসব কারণে স্মার্টফোন অনেক গরম হতে পারে

ইলেকট্রনিক জিনিষ গরম হবে সেটিই স্বাভাবিক ব্যাপার। এতে ইলেকট্রিসিটি প্রবাহিত করানো হয়, ফোনের প্রসেসর, জিপিইউ কিংবা সিস্টেম অন এ চিপ কাজ করার জন্য আরও বেশি ইলেকট্রিসিটির দরকার পড়ে, যদি আপনি ফোনে বেশি মাল্টি ট্যাস্কিং করেন কিংবা হেভি গেমিং করেন সেক্ষেত্রে। ফোন গরম হওয়াতে প্রথমত টেনশন নেওয়ার তেমন কিছুই নেই, এটা প্রধানত পদার্থ বিজ্ঞানের নীতিতেই গরম হয়ে থাকে। তবে আপনার ফোন এতোবেশি গরম হতে শুরু করে অর্থাৎ যদি হাতে ধরে রাখা সমস্যা হয়, তাহলে সত্যিই কোনো গুরুতর সমস্যা আপনার ফোনে থাকতে পারে বলেই ধরে নিতে হবে।

প্রসেসিং পাওয়ার এবং ইলেকট্রিসিটি

আপনার স্মার্টফোনসহ দুনিয়ার সব ইলেকট্রনিক ডিভাইজ সাধারণত ইলেকট্রিসিটি দ্বারা পরিচালিত। যতোবেশি হেভি প্রসেসিং করানো দরকার পড়বে, প্রসেসর ততোবেশি ইলেকট্রিসিটির ডিম্যান্ডও করবে। যতোবেশি ইলেকট্রিসিটি এতে প্রবাহিত হবে, ততোবেশি তাপমাত্রা জেনারেট হবে আপনার ফোন থেকে। আজকের স্মার্টফোনগুলোতে অনেক মডার্ণ প্রসেসর এবং এসওসি ইউজ করা হয়ে তাকে। অর্থাৎ আজকের কম্পিউটার ও মোবাইল ডিভাইজগুলো অনেক বেশি প্রসেসিং হ্যান্ডেল করতে পারে তাও অনেক কম গরম হয়েই।

স্ট্রিমিং এবং হেভি টাস্ক

গেমিং হতে অবশ্যই ফোন অনেক গরম হয়ে যেতে পারে, তবে এমন ধরনের যেকোনো কাজ যেটা প্রসেসরকে অনেক বিজি রাখে তা থেকে ফোন অত্যাধিক গরমও হতে পারে। আপনি ফোনে ভিডিও প্রসেস করতে লাগিয়ে দিলে ফোন অত্যাধিক গরম হবে সেটিই স্বাভাবিক।

বর্তমান যুগের বিশেষ এক পরিবর্তন হলো ফোন ইউজ করে সোশ্যাল মিডিয়াতে লাইভ ভিডিও স্ট্রিমিং করা। মাত্র ২০ মিনিট ধরে লাইভ স্ট্রিমিং করার কারণে আপনার মোবাইল ফোন অত্যাধিক গরম হয়ে যেতে পারে। আপনার রুমে যদি এসি না থাকে কিংবা আপনি যদি কোনো ঠাণ্ডা পরিবেশে না থাকেন, তাহলে এটি সত্যিই সমস্যা তৈরি করতে পারে। ব্যাপারটি আরও মারাত্মক হয়ে উঠতে পারে যদি আপনি গরম পরিবেশে গেমিং কিংবা লাইভ স্ট্রিমিং করতে করতেই আবারও মোবাইল ফোন চার্জে লাগিয়ে রাখেন! এতে করে কোনো দুর্ঘটনাও ঘটে যেতে পারে, কিংবা ব্যাটারি অত্যাধিক তাপে ফেটেও যেতে পারে!

ব্যাটারি হতেও মোবাইল ফোন গরম হতে পারে

শুধু যে প্রসেসর থেকেই মোবাইল ফোন গরম হয় এমন নাও হতে পারে, মোবাইল ফোনের ব্যাটারি থেকেও মোবাইল ফোন গরম হতে পারে। আপনার মোবাইল ফোনে ব্যাটারিই একমাত্র পাওয়ার সোর্স, যেটি সকল যন্ত্রপাতিকে পাওয়ার সরবরাহ করে থাকে। প্রত্যেকটি মোবাইল ফোনেই এখন ওভার চার্জড প্রটেকশন থাকে, তবে মোবাইল ফোনে চার্জার লাগিয়েই রাখা বা ১০০ শতাংশ চার্জ করাতেও মোবাইল ফোন অত্যাধিক গরম করতে পারে।

এটা সর্বদা আদর্শ হয় যদি মোবাইল ফোনের চার্জ ৭৫-৮৫ শতাংশ এর মধ্যে আপনি রাখতে পারেন। অর্থাৎ ৮৫ শতাংশ চার্জ হয়ে গেলেই চার্জার থেকে মোবাইল ফোন খুলে ফেলতে পারেন। এতে শুধু মোবাইল ফোন ওভার হিটিং থেকে নয়, বরং ব্যাটারি লাইফও অনেক দিন ভালো থাকতে পারে। যদি সর্বদা ১০০ শতাংশ চার্জ করতে থাকেন মোবাইল ফোনকে, সেক্ষেত্রে ওভার হিটিং সমস্যা আপনি এড়াতে পারবেন না।

বাজে ইন্টারনেট কানেকশন

খারাপ বা বাজে ইন্টারনেট কানেকশন থেকেও আপনার মোবাইল ফোন ওভারহিটিং হতে পারে। খারাপ ওয়াইফাই সিগন্যাল কিংবা সেলুলার সিগন্যালের কারণে প্রসেসরকে অনেক পাওয়ার খরচ করতে হয় আপনার কানেকশন স্ট্যাবল রাখার জন্য। সঙ্গে মোবাইল ফোনের মডেম ঠিক মতো ডাটা সেন্ড/রিসিভ না করতে পারার কারণে বেশি পাওয়ার ইউজ করতে থাকে স্ট্যাবল হওয়ার জন্য। এতে করে মোবাইল ফোন প্রচণ্ড গরম হয়ে উঠতে পারে।

মোবাইল ফোন অত্যাধিক গরম হওয়া থেকে বাঁচার সহজ উপায়

মোবাইল ফোন মারাত্মক গরম হওয়ার হাত থেকে বাঁচতে চাইলে মোবাইল ফোনের যত্ন নিতে হবে। সেই সঙ্গে কিছু কমন জিনিস আপনাকে মাথায় রাখতে হবে। প্রথমত মোবাইল ফোন অনেক গরম হয়ে গেলে মোবাইল ফোন থেকে কেস সরিয়ে ফেলুন, নর্মালভাবে মোবাইল ফোনে কেস ইউজ করলেও সেটা পাতলা কেস ইউজ করার চেষ্টা করতে হবে, আপনি অবশ্য সিলিকনের তৈরি কেস ইউজ করতে পারেন।

মোবাইল ফোন চার্জ করার জন্য উন্নতমানের ক্যাবল ও চার্জার ইউজ করতে হবে। বেশি ভালো হয় মোবাইল ফোনের অরিজিনাল চার্জার এবং ক্যাবল ইউজ করা। তবে যেকোনো ভালোমানের চার্জার ইউজ করলেও কোনো সমস্যা নেই। তবে সারারাত মোবাইল ফোনে চার্জার না লাগিয়ে রাখাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ, এতে করে মোবাইল ফোন গরম হয়ে যায় আবার সেই সঙ্গে ব্যাটারির আয়ুও কমে যায়। মোবাইল ফোনের চার্জ ৮৫ শতাংশ এর উপরে না করাই ভালো, তাছাড়া ০ শতাংশে ডিসচার্জ কখনও নামাবেন না।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...