The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

নতুন করে করোনা আক্রান্ত দু’জনের তথ্য দিলো আইইডিসিআর

ইতিমধ্যে বিশ্বের ১৫০টি দেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বিশ্বব্যাপী মহামারী আকার ধারণ করা করোনা ভাইরাসে বাংলাদেশে আরও দুজন আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)।

নতুন করে করোনা আক্রান্ত দু’জনের তথ্য দিলো আইইডিসিআর 1

গতকাল (শনিবার) রাত সাড়ে ৯টায় প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এই তথ্য নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের বলেছেন, তারা আগেই দেশে এসেছেন। এদের মধ্যে একজন হোম কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন।

তিনি বলেন, নতুন করে আক্রান্ত এই দুজনের একজন ইতালি ও অন্যজন জার্মানি থেকে দেশে এসেছেন। এদের মধ্যে একজনের লক্ষণ-উপসর্গ দেখা দেওয়ার পর তাকে আইসোলেশনে এনে রাখা হয়েছিল।

অবশ্য ইতিপূর্বে এদিন দুপুরে আয়োজিত নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে ‘দেশে এই মুহূর্তে করোনা আক্রান্ত কেও নেই’ বলে জানিয়েছিলেন আইইডিসিআর পরিচালক।

ইতিমধ্যে বিশ্বের ১৫০টি দেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৪২৫ জনের মৃত্যু ঘটেছে। তবে এতে নেই কোনও চীনা নাগরিক। শুধু যে প্রাণহানি থেকে মুক্তি পাওয়া গেছে তা নয়, উহানসহ দেশটির অন্যান্য অঞ্চলে এই সময় নতুন করে কোনও ব্যক্তির আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। উল্টো সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন নতুন আরও প্রায় ৩ হাজার নাগরিক। যার সংখ্যা বেড়ে ৭০ হাজারে ছাড়িয়েছে।

যে কারণে ইউরোপ, আমেরিকাসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশে মৃত্যুর মিছিল ভারি হলেও উন্নতির দিকে এশিয়ার সবচেয়ে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি এই দেশটি।

সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) বৈশ্বিক জরুরি অবস্থার পর মহামারি ঘোষণা করেছে। তারপরও নিয়ন্ত্রণের বাইরে করোনা সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বের নতুন করে ৮ হাজারেরও বেশি মানুষের দেহে ভাইরাসটির সংক্রমণ ধরা পড়েছে। যার সবেচেয় বড় ভুক্তভোগী হলো ইরোপীয় রাষ্ট্র ইতালি।

চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশনের বরাত দিয়ে গতকাল (শনিবার) স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম দ্য চায়না মর্নিং পোস্ট জানিয়েছে যে, ‘বিশ্বের অন্তত ১১৫টি দেশে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতি এই ভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে নতুন করে ৪২৫ জন মারা গেছে। এই নিয়ে এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৩৭৩ জন। বর্তমানে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১ লাখ প্রায় ৪১ হাজার মানুষ।

ভাইরাসটিতে মূলভূখন্ড চীনে বর্তমানে অপরিবর্তীত রয়েছে মৃতের সংখ্যা। চীনে শুক্রবার পর্যন্ত মারা গেছে ৩ হাজার ১৭৬ জন। আক্রান্তের সংখ্যা ৮০ হাজার ৮১৩।

অপরদিকে, চীনের বাইরে মৃত্যুকূপে পরিণত হয়েছে ইউরোপ এবং মধ্যপ্রাচ্য। এর মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ অবস্থা দাঁড়িয়েছে ইতালিতে। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন করে আরও ২৫০ জনের মৃত্যু ঘটেছে। এর আগের দিন ১৮৯ জনের মৃত্যু হয়েছিলো। এরও আগের দিন মৃত্যু হয় ১৯৬ জনের। এই নিয়ে দেশটিতে এ পর্যন্ত ১ হাজার ২৬৬ জনের প্রাণহানি ঘটলো। যা উৎপত্তিস্থল চীনের বাইরের সর্বোচ্চ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

Loading...