The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

পঙ্গপাল একধাক্কায় ২০ গুণ বংশবৃদ্ধি করে!

পঙ্গপালের ঝাঁকই নাকি এমনভাবে বংশবৃদ্ধি করে যে আগের থেকে তা হয়ে যায় ২০ গু‌ণ ঘাতক হিসেবে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ পঙ্গপালের কথা এখন আমরা প্রায় জানি। এই পঙ্গপালের দাপটে দিশেহারা বিশ্বের বেশ কিছু দেশ। ভারতেও হামলা চালিয়েছে এই পঙ্গপাল। পঙ্গপালের নতুন তথ্য হলো এরা নাকি একধাক্কায় ২০ গুণ বংশবৃদ্ধি করে!

পঙ্গপাল একধাক্কায় ২০ গুণ বংশবৃদ্ধি করে! 1

পঙ্গপালের ঝাঁকই নাকি এমনভাবে বংশবৃদ্ধি করে যে আগের থেকে তা হয়ে যায় ২০ গু‌ণ ঘাতক হিসেবে। কারণ হলো সংখ্যায় বেড়ে যায় একবারে ২০ গুণ। তাতেই হয়ে যায় ভয়ংকর। যদি আগের থেকেও এতো বেশি সংখ্যায় পঙ্গপাল আসে তাহলে তারসঙ্গে লড়াই করার উপায় কী হবে, সেটাই এখন সবার মনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

কেনিয়াও এমন অবস্থা এর আগে কখনও দেখেনি। শেষ ৭০ বছরে এমন পঙ্গপালের হামলা তাদের নজরেও পড়েনি। এতোদিন ধরে যে পঙ্গপাল দল ধ্বংসলীলা চালিয়ে আসছে, তারা তো সব সময় ছিলই। এখন এসেছে তাদেরই বংশধরেরা। পাখনাও গজিয়েছে। এখন শুধু ওড়ার ওপেক্ষা তাদের।

জানা যায় যে, এবার গতবারের থেকেও পঙ্গপালের সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে ২০ গুণ। যে কারণে একটি পঙ্গপালের ঝাঁক হবে প্রায় ২০০ কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত। এই করোনা মহামারীর মধ্যেও কী করে এই পঙ্গপালের বিরুদ্ধে লড়বে দেশগুলোর সরকার, সেটা সত্যিই বোঝা যাচ্ছে না।

পঙ্গপাল রুখতে আনা হয়েছে হেলিকপ্টার। যেখান থেকে কীটনাশক ছড়ানোর পরিকল্পনাও করা হচ্ছে। তবে এই পঙ্গপালই যদি আগের রাস্তা দিয়ে আসে, তাহলে কেনিয়াতে জন্মে তারা আবারও ফিরে যাবে সেই দেশেই। সেখানে গিয়েই ডিম পাড়বে, বংশবৃদ্ধিও করবে। বছরের পর বছর এমন ধাক্কা সামলাবে কী করে ওই দেশ?‌ এই প্রশ্ন দেখা দিয়েছে সবার মনে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...