The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

গলা ব্যথা শুরু হলে কী করবেন? জেনে নিন

গলাব্যথার ঘরোয়া প্রতিকার সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য এখানে তুলে ধরা হলো

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ করোনা ভাইরাস সংক্রমণের এ সময় অনেকেই গলাব্যথায় ভুগছেন। গলাব্যথার সঙ্গে কাশি হলেই করোনা পরীক্ষা করাতে হবে। তবে গলাব্যথা মানে আপনি কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন এমন কিন্তু হয়।

স্বাস্থ্যবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন হতে গলাব্যথার ঘরোয়া প্রতিকার সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যায় যা এখানে তুলে ধরা হলো।

মধু ও আদা

গলাব্যথা সারাতে খুবই কার্যকর হচ্ছে মধু ও আদা। মধু রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। আর আদা ও মধুর মিশ্রণ ‘এক্সপেক্টোরান্ট’ হিসেবে শ্বাসতন্ত্রে লালা নিঃসরণ বাড়িয়ে দেয়। তাছাড়াও এটি ‘সাইনাস’ও খুলে দেয়, ‘মিউকাস’ বা শ্লেষ্মাও পরিষ্কার করে। তাছাড়াও এটি গলা হতে অস্বস্তি সৃষ্টিকারী উপাদান পরিষ্কার করে।

লবণ পানিতে গার্গল করা

গলাব্যথা কমাতে লবণ পানিতে গার্গল করা খুবই উপকারী একটি কাজ। জীবাণু দূর করার এই পদ্ধতির গলাব্যথা কমাতে খুবই কার্যকর একটি পদ্ধতি।উপকার পেতে দিনে অন্তত তিনবার এবং সপ্তাহে তিন থেকে চার দিন অবশ্যই গার্গল করতে হবে। শরীরের আর্দ্রতা বজায় রাখতেও লবণপানি দিয়ে গার্গল করা উপকারী।

যষ্টিমধু খান

আয়ুর্বেদিক গুণসমৃদ্ধ যষ্টিমধু চায়ের সঙ্গে খান। গলাব্যথার সঙ্গে আসা চুলকানি বা অস্বস্তি দূর করবে এই যষ্টিমধু।

অ্যাপল সাইডার ভিনিগারের ব্যবহার

সর্দিকাশি সারাতে ব্যবহৃত কিছু ভেষজ ওষুধের প্রধান উপকরণ হলো এই ভিনিগার। গলাব্যথা এবং অ্যাসিড সংক্রমণ ছড়ানোর জন্য দায়ী ব্যাক্টেরিয়া ধ্বংস করে এটি। এক গ্লাস কুসুম গরম পানিতে এক টেবিল চামচ অ্যাপল সাইডার ভিনিগার মিশিয়ে তা পান করলেই উপকার পাওয়া যাবে।

অন্যান্য সতর্কতা

গলাব্যথায় ঘরোয়া এসব প্রতিকার পেতে হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। এ ছাড়াও মানতে হবে আরও সব স্বাস্থ্যবিধি।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...