The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ভয়ঙ্কর যুদ্ধবিমান রাফাল ভারতের মাটিতে অবতরণ করেছে

এবার ভারতের বিমান বাহিনীতে যুক্ত হয়েছে ৫টি ভয়ঙ্কর রাফাল যুদ্ধবিমান

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সম্প্রতি ভারতের লাদাখ সীমান্তে চীনের সঙ্গে সংঘর্ষের পর সেনাবাহিনীর অস্ত্র ভাণ্ডারের আধুনিকীকরণ করতে শুরু করে দিয়েছে ভারত। এই বাবদ মোটা অঙ্কের অর্থও খরচ করছে ভারত সরকার।

ভয়ঙ্কর যুদ্ধবিমান রাফাল ভারতের মাটিতে অবতরণ করেছে 1

সেই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে এবার ভারতের বিমান বাহিনীতে যুক্ত হয়েছে ৫টি ভয়ঙ্কর রাফাল যুদ্ধবিমান। গতকাল (বুধবার) এই ৫টি সর্বাধুনিক যুদ্ধবিমান ভারতের মাটি স্পর্শ করেছে।

আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে বলা হয়, এদিন দুপুর ৩টায় হরিয়ানা রাজ্যের আম্বালায় ভারতীয় বিমান বাহিনীর ঘাঁটিতে অবতরণ করে ওই বিমানগুলো। ভারতীয় পাইলটরাই যুদ্ধবিমানগুলোকে উড়িয়ে নিয়ে আসেন। আম্বালা ঘাঁটিতে তাদের স্বাগত জানিয়েছেন বায়ুসেনাপ্রধান এয়ার মার্শাল রাকেশ কুমার সিংহ ভাদৌরিয়া।

এর পূর্বে সোমবার ফ্রান্স হতে ভারতের উদ্দেশে রওনা দেয় ওই বিমানগুলো। এদিকে আম্বালায় রাফালের অবতরণের একটি ভিডিও নিজের টুইটারে পোস্ট করে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। পোস্টে সংস্কৃত শ্লোক লিখে রাফালকে ভারতে স্বাগত জানিয়েছেন মোদি।

রাফাল ভারতে পৌঁছানোর পরপরই ফ্রান্সকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। এক টুইটে তিনি লেখেন যে, ‘নিরাপদেই আম্বালায় অবতরণ করেছে রাফালগুলো। এজন্য ভারতীয় বিমান বাহিনীকে অভিনন্দন। রাফাল যুদ্ধবিমান মাটি ছোঁয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ভারতের সামরিক ইতিহাসে নতুন এত যুগের সূচনা হলো। একেবারে সঠিক সময়ে ভারতীয় বায়ুসেনার যুদ্ধক্ষমতা বৃদ্ধি পেলো।’

ভারতীয় বিমানবাহিনী সেনা সূত্রের খবরে বলা হয়েছে, রাফালে যুদ্ধবিমান ওড়ানোর জন্য ফ্রান্স হতে বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে ভারতের ১২ জন পাইলটকে। এয়ারবাস ৩৩০ মাল্টিরোল ট্যাঙ্কার ট্রান্সপোর্ট এয়ারক্রাফট উড়িয়ে কীভাবে মাঝ আকাশে জ্বালানি ভরতে হবে সেই প্রশিক্ষণও নিয়েছেন ভারতীয় পাইলটরা।

হরিয়ানার আম্বালা বিমানবাহিনী ঘাঁটিতে ‘গোল্ডেন অ্যারো’ ১৭ নম্বর স্কোয়ার্ডনের অন্তর্ভুক্ত করা হবে এই নতুন যুদ্ধবিমানগুলো।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...