The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

রোহিঙ্গা হত্যাকাণ্ড: নৃশংসতার কথা স্বীকার করলো মিয়ানমারের সাবেক দুই সেনা সদস্য

দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস ও কানাডিয়ান ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশন এক তথ্যে জানিয়েছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলিমদের উপর দেশটির সেনাবাহিনী বর্বরোচিবত নির্যাতন চালায়। এই নৃশংসতার কথা স্বীকার করেছেন দেশটির সাবেক দুই সেনা সদস্য।

রোহিঙ্গা হত্যাকাণ্ড: নৃশংসতার কথা স্বীকার করলো মিয়ানমারের সাবেক দুই সেনা সদস্য 1

দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস ও কানাডিয়ান ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশন এক তথ্যে জানিয়েছে, মাইও উন তুন ও জও ন্যাং তুন নামে দুই জন সৈন্য গত মাসে মিয়ানমার সেনাবাহিনী (যা তাতমাদাউ নামেই পরিচিত) ত্যাগ করে চলে আসেন।

তারা রোহিঙ্গাদের উপর সংঘঠিত নির্যাতন দেখেছেন এবং তাতে নিজেরাও অংশ গ্রহণ করেছেন বলে তারা পৃথক পৃথক সাক্ষাৎকারে তার বিবরণ তুলে ধরেন। খবর ভয়েস অব আমেরিকার।

মিয়ানমারের এই দুই জন সৈন্য উত্তরাঞ্চলের রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে ২০১৭ সালে সামরিক অভিযানের সময়কার বিভিষীকাময় ঘটনার বর্ণনা তুলে ধরেছেন। ওই সময়কার ঘটনাকে জাতিসংঘ ‘গণহত্যা’ বলে চিহ্নিত করে আসছে।

মাইও উন ও জও ন্যাং জানিয়েছেন, তারা সকল রোহিঙ্গা মুসলিমকে দেখামাত্র গুলি করার আদেশ পালন করেছেন এবং তারা দেখেছেন যে, তাদেরই সহযোগী সৈন্যরা তরুণী ও নারীদের ধর্ষণও করেছেন।

সেনাবাহিনী গ্রামের পর গ্রাম পুড়িয়ে দিয়েছেন। ওই অভিযানের কারণে সাম্প্রতিক বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম শরনার্থী সংকটের উদ্ভব ঘটে। ৮ লাখের বেশি রোহিঙ্গা গ্রামবাসী সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে আশ্রয় গ্রহণ করে।

মিয়ানমার সৈন্যদের দেওয়া এই প্রথম রেকর্ড করা বর্ণনার সঙ্গে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক তদন্তকারীদের কাছে দেওয়া বর্ণনার মিল খুঁজে পাওয়া গেছে।

এই বর্ণনা দুটি রেকর্ড করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধরত বিদ্রোহী গোষ্ঠি আরাকান আর্মি। ফর্টিফাই রাইটস নামে থাইল্যান্ডের একটি মানবাধিকার বিষয়ক নজরদারি সংগঠন ওই ভিডিওটি পেয়েছেন। তারা এটি অনুবাদ করে মন্তব্যগুলো বিশ্লেষণও করেছেন।

সাবেক এই দুই সেনা দ্য হেইগের আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের হেফাজতে রয়েছেন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...