The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

আবারও শুটিংয়ে ফিরছেন অনন্ত-বর্ষা

ছয় মাস আগে যখন করোনার কারণে শুটিং বন্ধ হয় তখন স্থান ছিলো তুরস্ক

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ছয় মাস পূর্বে গত মার্চে শেষবারের মতো স্ত্রী বর্ষাকে নিয়ে সিনে ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়েছিলেন আলোচিত প্রযোজক ও নায়ক অনন্ত জলিল। আবারও শুটিংয়ে ফিরছেন অনন্ত-বর্ষা। শুটিং এর জন্য রওনা দিয়েছেন তুরস্ক।

আবারও শুটিংয়ে ফিরছেন অনন্ত-বর্ষা 1

ছয় মাস আগে যখন করোনার কারণে শুটিং বন্ধ হয় তখন স্থান ছিলো তুরস্ক। কথা ছিল লাগাতার শুটিংয়ের মাধ্যমে ‘দিন—দ্য ডে’-এর কাজ শেষ করবেন অনন্ত জরিল। তবে তা হয়ে ওঠেনি। মাত্র দুই সপ্তাহের দৃশ্যধারণ বাকি থাকতেই করোনায় আটকে যায় তাদের কাজ।

তাই আবারও শুটিংয়ে ফিরছেন অনন্ত-বর্ষাসহ পুরো টিম। সে জন্য যেতে হচ্ছে তুরস্কে। আগামী অক্টোবরে দেশটিতে শুটিংয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছেন অনন্ত জলিল। সবার ভিসা মিললে অক্টোবর মাসেই বাকি কাজটুকুর রফা করবেন।

এই বিষয়ে অনন্ত জলিল বলেছেন, ‘ইতিমধ্যেই ইস্তাম্বুল এবং আনাতলিয়ায় শুটিং করার অনুমতিও পাওয়া গেছে। তবে এখান থেকে আরও কয়েকজনের ভিসা পেতে হবে। আশা করছি, সেটি সামনের সপ্তাহেই পেয়ে যাবো। তাহলেই শুটিংটি অক্টোবরে করে ফেলবো বলে আশা করছি। কারণ হলো ডিসেম্বরে তুরস্কে শীত পড়ে যায়। তখন শুটিং করাটা বেশ কষ্টকর হবে।’

বাংলাদেশ এবং ইরানের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হচ্ছে ‘দিন—দ্য ডে’। এই সিনেমাটি পরিচালনা করছেন ইরানি নির্মাতা মুর্তজা অতাশ জমজম। বাংলাদেশ ছাড়াও ইরান, তুরস্ক ও আফগানিস্তানে সিনেমাটির শুটিং হয়েছে।

যৌথ প্রযোজনার এই ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন অনন্তর ঘনিষ্ঠ বন্ধু সুমন ফারুক, খল অভিনেতা মিশা সওদাগরসহ অনেকেই। তাছাড়াও ইরান-লেবাননসহ বেশ কয়েকটি দেশের প্রথম কাতারের তারকারাও এতে যুক্ত রয়েছেন।

ছবির অন্যতম প্রযোজক অনন্ত জলিল জানিয়েছেন, অক্টোবরে শুটিংয়ের সব কিছু ঠিক-ঠাক থাকলে নতুন বছরের প্রথম দিকে ছবিটি মুক্তি দেওয়া হবে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...