The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

আঁচল-আজাদের নতুন চলচ্চিত্র ‘চিতকার’

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ রাজধানীর উত্তরার একটি শুটিং হাউজে মহরতের মাধ্যমে শুরু হয়েছে নতুন চলচ্চিত্র ‘চিতকার’ এর শুটিং। আহাদুর রহমানের গল্পে ও ইয়াসির আরাফাত জুয়েল এর পরিচালনায় চলচ্চিত্রটিতে অভিনয় করছেন এ কে আজাদ আদর ও আঁচল।

আঁচল-আজাদের নতুন চলচ্চিত্র ‘চিতকার’ 1

এই চলচ্চিত্রটি নির্মাণ হচ্ছে ক্লিওপেট্রা ফিল্মস-এর ব্যানারে। সাইকো থ্রিলার ধাঁচের চলচ্চিত্রটির প্রধান চরিত্রে অভিনয় করছেন এ কে আজাদ আদর এবং চিত্রনায়িকা আঁচল। এই চলচ্চিত্রটির গানের সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন পিন্টু ঘোষ, সিনেমাটোগ্রাফী করছেন রুমন পাইকার ও লাইন প্রযোজক হিসেবে রয়েছেন ইমদাদুল ইসলাম যিকরান।

নির্মাতা জানিয়েছেন, ইচ্ছা ছিলো জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মহরত করা। তবে করোনা ভাইরাসের কারণে সেটি করা সম্ভব হয়নি। সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনেই শুটিং শুরু করছি। ‘চিতকার’ এ আজাদ আদর ও আঁচলের চরিত্রটি খুবই ডিফিকাল্ট। প্রায় এক মাস রিহার্সেল করিয়ে চরিত্রের সঙ্গে তাদেরকে মিলিয়ে নিয়েছি। এই সিনেমাটির মাধ্যমে আশা করছি দর্শকরা নতুন কিছু পাবেন।

অভিনেতা এ কে আজাদ আদর বলেন, আহাদ ভাই সত্যিই চমৎকার একটি গল্প লিখেছেন। আমার চরিত্রটি খুবই ডেঞ্জারাস একটি চরিত্র। পরিচালক ইয়াসির আরাফাত জুয়েল ভাইয়ের সঙ্গে আগেও আমি কাজ করেছি। তিনি অসাধারণ একজন মেকার। তার নির্দেশনায় আাশা করছি আমি নিজের চরিত্রটি সঠিকভাবে ফুটিয়ে তুলতে পারবো। সেটা পারলে দর্শকদের জন্য বিশেষ কিছু হবে বলেও আমার বিশ্বাস।

এই চলচ্চিত্র সম্পর্কে আঁচল বলেন, এই সিনেমায় আমার জীবনের চ্যালেঞ্জিং একটি চরিত্র বলা যায়। এই ধরনের গল্পে কখনই আমি কাজ করিনি। এক কথায় বলতে পারি এখন পর্যন্ত আমার জীবনের সেরা কাজ হতে চলেছে ‘চিতকার’। আমার বিশ্বাস বাংলাদেশের দর্শকরা নিরাশ হবেন না।

‘চিতকার’ চলচ্চিত্রটিতে এ কে আজাদ আদর ও আঁচল ছাড়াও বিভিন্ন চরিত্রে আরও অভিনয় করছেন শাহেদ আলী, সুম্মিতা সিনহাসহ অনেকেই।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...