The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মোবাইল স্যানিটাইজ করলে ঘোর বিপদ হতে পারে!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ প্রতিদিন বিশ্বজুড়ে এখনও পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু ঘটছে। প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যাও। এমনই পরিস্থিতিতে উদ্বেগ বাড়ালেন করোনা প্রসঙ্গে একদল প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ দল। তারা বলেছেন, মোবাইল স্যানিটাইজ করলে ঘোর বিপদ হতে পারে!

মোবাইল স্যানিটাইজ করলে ঘোর বিপদ হতে পারে! 1

বিজ্ঞানীরা দাবি করেন মূলত, স্টেইনলেস স্টিল, কাচ ও ব্যাঙ্ক নোটের উপর প্রায় ২৮ দিন পর্যন্ত টিকে থাকতে পারে করোনা ভাইরাস। এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই স্যানিটাইজার স্প্রে করা শুরু করেন সাধারণ জনগণ।

অথচ বিশেষজ্ঞরা বলেছেন যে, ঘন ঘন স্যানিটাইজারে আরও বিপদ অপেক্ষা করছে আপনার ফোনের কপালে। সেইসঙ্গে আপনারও। প্রথম যেটি হতে পারে তা হলো, অ্যালকোহলযুক্ত স্যানিটাইজারটি ফোনের উপর পড়লে স্ক্রিন, হেডফোন জ্যাক ও স্পিকারও খারাপ হতে পারে।

সে কারণেই নাকি করোনার পর ফোন মেরামত কেন্দ্রে পুনরুদ্ধারের সংখ্যা উল্লেখযোগ্যহারে বেড়েছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এই ধরনের ফোনগুলি মেরামত কেন্দ্রে আসছে যা স্যানিটাইজার দিয়ে পরিষ্কার করা হতো। সেখানকারই এক কর্মীর ভাষায়, অনেক লোক মোবাইলটিকে এমনভাবে স্যানিটাইজ করছেন যে স্যানিটাইজারটি হেডফোন জ্যাকটিতেও প্রবেশ করে। এতে করে ফোনের অন্দরমহলে শর্ট সার্কিট হয়ে যাচ্ছে।

স্যানিটাইজার দিয়ে মোবাইল ফোনটি পরিষ্কার করা হলে আপনার ফোনের রঙও পরিবর্তন হতে পারে। অ্যালকোহল-ভিত্তিক স্যানিটাইজার মোবাইল ফোনের ডিসপ্লে ও ক্যামেরার লেন্সকেও ক্ষতি করতে পারে। এটি মোবাইল ফোনের ডিসপ্লেকে হলুদ করে দেবে।

অপরদিকে, CSIRO-এর বিজ্ঞানীদের দাবি হলো, সাধারণ ফ্লু-এর জীবাণুর চেয়ে দীর্ঘজীবী করোনা ভাইরাস। তারা পরীক্ষা করে দেখেছেন যে, ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় প্লাস্টিকের ব্যাঙ্ক নোট এবং মোবাইল ফোনের স্ক্রিনে ব্যবহৃত কাঁচের উপর টানা ২৮ দিন পর্যন্ত সক্রিয় থাকতে পারে এই করোনা ভাইরাস। এই ক্ষেত্রে দেখা যায় সাধারণ ফ্লুয়ের জীবাণু ১৭ দিন পর্যন্ত টিকে থাকতে পারে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...