The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ভুয়া তথ্য বন্ধে কঠিন পদক্ষেপে যাচ্ছে ফেসবুক

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ফেসবুকের ভুয়া তথ্য ছড়ানো দিনকে দিন বাড়ছে। সেইসব ভুয়া তথ্যের কারণে বিভ্রান্ত হচ্ছেন অনেকেই। এবার ভুয়া তথ্য ছড়ানো রুখতে আরও কড়া পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

ভুয়া তথ্য বন্ধে কঠিন পদক্ষেপে যাচ্ছে ফেসবুক 1

সম্প্রতি বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় এই সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের পক্ষ হতে এক বিবৃতিতে একথা জানানো হয়। কী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে যাচ্ছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ?

আসলেও ফেসবুকে ভুয়া তথ্য বেশি ছড়াচ্ছে বিভিন্ন গ্রুপ হতে। বিশেষ করে রাজনৈতিক বা সোশ্যাল ইস্যু নিয়ে তৈরি গ্রুপগুলো হতেই একাধিক ভুয়া তথ্য ছড়ানো হয়ে থাকে। যা পরবর্তীতে প্রভাবিত করে ব্যবহারকারীদের মধ্যেও। এমনকি অনেক সময় হিংসা ছড়াতেও এই ধরনের গ্রুপগুলো দায়ী থাকে। সে কারণেই এই ধরনের রাজনৈতিক বা সোশ্যাল ইস্যু নিয়ে তৈরি গ্রুপগুলোকে কখনও সাধারণ ব্যবহারকারীদের সুপারিশ করবে না ফেসবুক।

আবার যে সকল গ্রুপ নিয়ম ভাঙবে, তাদের বিরুদ্ধেও পদক্ষেপ গ্রহণ করবে ফেসবুক। তাদের সুপারিশ কমিয়ে দেওয়া হবে, সেই সঙ্গে কমানো হবে ব্যবহারকারীদের কাছে পৌঁছানোর ক্ষমতাও। শুধু তাই নয়, কেও ওই গ্রুপগুলিতে যোগ দিতে চাইলে, তাকে সাবধানও করা হবে ফেসবুকের পক্ষ হতে।

ইতিপূর্বে বিশেষজ্ঞ হতে শুরু করে সমাজকর্মীরা একাধিকবার দাবি জানিয়ে আসছিলেন যে, বিভিন্ন জায়গায় হিংসার ঘটনায় ইন্ধন জোগায় ফেসবুক বিভিন্ন গ্রুপ। ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে সেগুলির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান তারা। ফেসবুক ইঞ্জিনিয়ারিং দপ্তরের ভাইস প্রেসিডেন্ট টম অ্যালিসন জানিয়েছিলেন যে, সাধারণ ব্যবহারকারীররা নিজেদের ওয়ালে খুব বেশি একটা রাজনৈতিক পোস্ট দেখতে চান না। তাই ফেসবুক গ্রুপগুলির নীতিতে কিছুটা বদল আনবে। এবার সেটাই জানানো হলো বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের পক্ষ হতে। যে কারণে এটি ভুয়া তথ্য বন্ধে বেশ ভূমিকা পালন করবে বলে মনে করা হচ্ছে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...