The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ডায়াবেটিস হতে শিশুদের রক্ষা করতে যে পদক্ষেপ নিতে হবে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বর্তমান সময় পুরো বিশ্বে মহামারী আকার ধারণ করেছে ডায়াবেটিস। প্রতি ১১ জন প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষের মধ্যে একজনই ডায়াবেটিসে আক্রান্ত। শিশুদের আক্রান্তের সংখ্যাও বাড়ছে। তাই কিছু পদক্ষেপ সম্পর্কে জেনে নিন।

ডায়াবেটিস হতে শিশুদের রক্ষা করতে যে পদক্ষেপ নিতে হবে 1

সাম্প্রতিক সময় এক সমীক্ষায় দেখা গেছে যে, শিশুদের মধ্যেও টাইপ-২ ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা বাড়ছে। ওজন বৃদ্ধি, নিষ্ক্রিয়তা, পারিবারিক ইতিহাস ও গর্ভকালীনসহ নানা কারণে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা।

ডায়াবেটিস একটি দীর্ঘস্থায়ী পরিস্থিতি যা মানব দেহে সুগারের প্রভাবকে তরাণ্বিত করে। যে কারণে শরীরে দীর্ঘমেয়াদে মারাত্মক পরিণতি ধারণ করে থাকে। এমন জীবন আপনার সন্তানের হোক তা নিশ্চয়ই আপনি কখনও চাইবেন না? তাই আগে থেকেই সতর্ক হোন।

কী ভাবে সন্তানকে ডায়াবেটিসের কবল হতে রক্ষা করবেন?

# গত এক দশকে শারীরিক অনুশীলন বদলে গেছে ভিডিও গেমস ও টিভি দেখা এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ঘরের মধ্যে বন্দী থাকার কারণে এর প্রবণতা বেড়েছে। সে কারণে খাওয়ার অভ্যাসেও উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন এসেছে। তাই সন্তানের খাদ্য অভ্যাস বদলাতে হবে। শরীর চর্চা এবং খেলাধূলার মধ্যে রাখতে হবে সন্তানকে।

# ভবিষ্যতে স্বাস্থ্যের কথা ভেবেই তৈরি করুন আপনার সন্তানের খাবারের তালিকা। আপনি যদি একটি স্বাস্থ্যকর পরিবেশ তৈরি করতে পারেন, তাহলে আপনার সন্তানকে সুস্থ জীবনযাপন করতে সহায়তা করবে।

# সফট ড্রিঙ্কস ও আরও অন্যান্য প্যাকেটজাতীয় খাদ্য স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকারক। এই ধরনের খাবার কেবল ওজন বাড়ানোর কারণই নয়, এটি স্বাস্থ্যের মারাত্মক ক্ষতিও করে থাকে। এগুলো খুব অল্প বয়সেই যতোটা সম্ভব এড়িয়ে যেতে হবে।

# চিনি খাওয়ার অভ্যাসও কম করে দেওয়া উচিত। আপনি এক চা চামচ গুড় কিংবা মধু ব্যবহার করতে পারেন।

# শরীর চর্চা করতে হবে প্রতিদিন। ভিটামিন-ডি এর প্রভাব বাড়াতে হবে শরীরের মধ্যে। সকালের রোদ আপনার সন্তানের গায়ে লাগতে দিন।

# শাক সবজি খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। আপনার সন্তানের শরীরে প্রয়োজনীয় ভিটামিন এ, সি ও কে এর তারতম্য সঠিক রাখুন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...