The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ডাবের পানির অনেক গুণ

ডাবের পানির অসাধারণ স্বাস্থ্যোপকারিতাগুলোর মধ্যে একটি হলো কিডনিতে পাথর জমতে বাঁধা দেওয়া

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ডাবের পানিকে আমরা খুব স্বাভাবিক পানি মনে করে থাকি। তবে মোটেও তা নয়, ডাবের পানিতে রয়েছে অনেক গুণ। যা মানব দেহের জন্য খুবই উপকারী।

ডাবের পানির অনেক গুণ 1

ডাবের পানির অসাধারণ স্বাস্থ্যোপকারিতাগুলোর মধ্যে একটি হলো কিডনিতে পাথর জমতে বাঁধা দেওয়া। স্ফটিকজাতীয় পদার্থের উপস্থিতির কারণে কিডনিতে পাথর হওয়ার মতো ঝুঁকিপূর্ণ স্বাস্থ্য সমস্যা দেখা দিতে পারে। গবেষণায় দেখা গেছে যে, ডাবের পানি কিডনি হতে এই স্ফটিকজাতীয় পদার্থ মূত্রত্যাগের মাধ্যমে দেহের বাইরে বের করে দিতে যথেষ্ট কার্যকর ভুমিকা পালন করে থাকে।

গরমের সময় রোগ খুব দ্রুত ছড়ায় মানব দেহে। তাই এই সময় শরীরের প্রতি বাড়তি নজর রাখা অত্যন্ত জরুরি একটি বিষয়। বাইরে বের হওয়ার সময় অবশ্যই সঙ্গে পানি রাখুন। সেই সঙ্গে মাঝেমধ্যে ডাবের পানিও পান করুন। কারণ হলো ডাবের পানিতে রয়েছে অনেক পুষ্টি এবং স্বাস্থ্য উপকারিতা। এটি অত্যন্ত উপকারী এবং পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াহীন একটি প্রাকৃতিক পানীয়। এর বিভিন্ন উপকারিতা সম্পর্কে আজ জেনে নিন।

প্রাকৃতিক পুষ্টিগুণ শরীরের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে থাকে এই ডাবের পানি। যে কারণে হৃদরোগের ঝুঁকি অনেকাংশে কমে যায়। সেইসঙ্গে অন্যান্য কার্ডিওভাসকুলার বিষয়গুলোকেও নিয়ন্ত্রণ করে। এছাড়াও ডাবের পানি শরীরের ভেতরে অতিরিক্ত সুগার লেভেলকেও নিয়ন্ত্রণে আনতে বিশেষ ভুমিকা রাখে।

ডাবের পানির মধ্যে বেশকিছু এন্টি ব্যাকটেরিয়াল এবং এন্টি ভাইরাল উপাদান থাকার কারণে এই পানি ব্যাকটেরিয়া এবং ভাইরাস মারতে অনেক কার্যকরী ভুমিকা পালন করে। তাই প্রতিদিন খাবারসহ অন্যান্য মাধ্যমে আমাদের শরীরে যেসব ব্যকটেরিয়া এবং ভাইরাস প্রবেশ করে সেগুলো মারার জন্য এক গ্লাস ডাবের পানিই যথেষ্ট।

হজম শক্তি বৃদ্ধি ও বদহজম দূর করতেও ডাবের পানির জুড়ি নেই। তাই ডাবের পানি কাজ করে হজম সমস্যা সমাধানেও। হজম শক্তি বৃদ্ধিসহ বদহজম দূর হয় এই ডাবের পানির মাধ্যমে। ডাবের পানি গ্যাসট্রিক, আলসার, ডিসেন্ট্রি, কোলাইটিস এবং পাইলসের সমস্যা দূরীকরণেও সাহায্য করে থাকে এই ডাবের পানি।

ত্বক সুন্দর রাখতে ডাবের পানি খুবই উপকারী। প্রায় ৯৪ শতাংশই পানি থাকে একটি ডাবের মধ্যে। এই পানি সাহায্য করে ত্বকের সৌন্দর্য রক্ষাসহ পুরো দেহের শিরা-উপশিরায় সঠিকভাবে রক্ত চলাচল করতে। ডাবের পানি বেশি পরিমাণে পান করলে কিডনির কাজ করতে সুবিধা হয়, দেহে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তের সরবরাহও বাড়ে। যে কারণে ত্বকসহ প্রতিটি অঙ্গে পৌঁছায় বিশুদ্ধ রক্ত ও পুরো দেহ সতেজ এবং শক্তিশালী হয়।

এতো গুণের পাশাপাশি ডাবের পানির চমৎকার ভুমিকা রয়েছে ওজন কমাতে। এতে কোনো চর্বি কিংবা কোলেস্টেরল থাকে না এবং এতে চিনির পরিমাণও অল্প থাকায় নিশ্চিন্তে পান করা যাবে যতোটুকু খুশি। তাছাড়াও চর্বি ধ্বংস করতেও সাহায্য করে এই ডাবের পানি। প্রচুর পরিমাণে খনিজ উপাদান থাকায় বাড়ন্ত শিশু হতে শুরু করে বৃদ্ধ পর্যন্ত সবাই উপকার পান এই ডাবের পানি পান করে । ডাবের পানি যথেষ্ট ভুমিকা রাখে তারুণ্য ধরে রাখতেও।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...