The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

কমওয়ার্ড ২০২১ -এ পুরস্কার জিতলো এনার্জিপ্যাকের ‘আমার গাড়ি, আমার ঘর’ ক্যাম্পেইন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ গত ২৮ আগস্ট অনুষ্ঠিত হওয়া “কমওয়ার্ড: এক্সিলেন্স ইন ক্রিয়েটিভ কমিউনিকেশন’র ১০ম সংস্করণে পুরস্কৃত হয়েছে এনার্জিপ্যাকের জেএসি ‘আমার গাড়ি, আমার ঘর’ ক্যাম্পেইন।

কমওয়ার্ড ২০২১ -এ পুরস্কার জিতলো এনার্জিপ্যাকের ‘আমার গাড়ি, আমার ঘর’ ক্যাম্পেইন 1

এনার্জিপ্যাকের এ ক্যাম্পেইনটি তৈরি করেছে এনার্জিপ্যাকের স্ট্র্যাটেজিক এজেন্সি এডিএ (অ্যানালিটিক্স ডেটা অ্যাডভার্টাইজিং) ।

এ বছর মোট ২২৭টি প্রতিষ্ঠানকে ২৬টি ক্যাটাগরিতে ব্রোঞ্জ, সিলভার, গোল্ড ও গ্রান্ড প্রি বিভাগে কমওয়ার্ড বিজ্ঞাপন পুরস্কার প্রদান করা হয়। জেএসি গাড়ির জন্য তৈরি জেএসি ‘আমার গাড়ি, আমার ঘর’ ক্যাম্পেইনটি ‘বেস্ট এফিক্যাসি’ ক্যাটাগরিতে ব্রোঞ্জ পুরস্কার জিতে নেয়। একজন ট্রাক ড্রাইভার বাহন চালানো ও প্রয়োজনীয় পণ্য পরিবহনে তার গাড়িতেই উল্লেখযোগ্য সময় ব্যয় করেন। তাকে তার গাড়ির ওপর নির্ভর করেই দীর্ঘ পথ ভ্রমণ করতে হয়। ফলে, তার গাড়িই রূপক অর্থে তার বাড়ি হয়ে ওঠে। বিজ্ঞাপনটি গাড়ি (জেএসি যানবাহন) ও এর চালকের মধ্যে এ চমৎকার সম্পর্ককে ফুটিয়ে তুলেছে।

এই উপলক্ষে এনার্জিপ্যাকের মার্কেটিং কমিউনিকেশন স্ট্র্যাটেজিসের প্রধান আমিন মাহমুদ বলেন, “আমরা সত্যিই খুব আনন্দিত যে আমাদের প্রচেষ্টা ও উদ্যোগ বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের ফ্ল্যাগশিপ উদ্যোগে স্বীকৃতি পেয়েছে। সামাজিকভাবে দায়িত্বশীল একটি কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান হিসেবে এনার্জিপ্যাক সবসময় বাস্তবতার সাথে সংশ্লিষ্টতা রেখে ক্যাম্পেইন করার চেষ্টা করে। আমাদের এ ক্যাম্পেইনটিতে এ বক্তব্যই ফুটে উঠেছে।”

উল্লেখ্য, এনার্জিপ্যাক আনহুই জিয়াংহুয়াই অটোমোবাইল গ্রুপ কোং লিমিটেডের জেএসি ব্র্যান্ডের একমাত্র পরিবেশক। জেএসি গাড়ির মাধ্যমে এনার্জিপ্যাক বাংলাদেশের বাজারে ১.৫ টন সেগমেন্টে সেরা- শ্রেণির বাণিজ্যিক যানবাহন ও ৫ টন হেভি-ডিউটি ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান, পিকআপ সহ বিস্তৃত বাণিজ্যিক বাহন দেশের বাজারে নিয়ে আসার মাধ্যমে, এক্ষেত্রে অভুতপূর্ব পরিবর্তন নিয়ে এসেছে। এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড জেএসি গাড়ির মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তির জন্য কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করে দেশের সামগ্রিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতেও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে।

এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড:

১৯৯৫ সাল থেকে এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড (ইপিজিএল) সব সময় 'এনার্জি ওয়ার্কস ওয়ান্ডার্সে' বিশ্বাস করে। তাই, বাজারের সর্বাধুনিক উদ্ভাবনী প্রযুক্তির সাহায্যে মানুষের জীবনে ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে প্রতিষ্ঠানটি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ইপিজিএল বাংলাদেশের বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যবস্থার ঘাটতি দূর করতে এবং তাদের কর্মীদের জীবনমান উন্নীতকরণের পাশাপাশি এর গ্রাহকদের জীবনযাত্রার মান উন্নত করার লক্ষ্যে কাজ করে। এ প্রতিষ্ঠানটি কেবলমাত্র গুণগতমানের পণ্যগুলোর মাধ্যমেই নয় বরং এর পরিষেবাগুলোর সর্বোত্তম ব্যবহারের মাধ্যমে নিজেদের লক্ষ্য অর্জনে সচেষ্ট।

দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে, ইপিজিএল তার গ্রাহক এবং অংশীদার উভয়কেই পুরোপুরি পাওয়ার ইঞ্জিনিয়ারিং সমাধান সরবরাহ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। যাত্রা শুরুর পর থেকেই, ইপিজিএল বাংলাদেশের বৃহত্তম পাওয়ার ইঞ্জিনিয়ারিং প্রতিষ্ঠান হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছে এবং স্থানীয় ও বৈশ্বিকভাবে সুপরিচিত উভয় প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে সম্মান ও আস্থা অর্জন করেছে। বর্তমানে, ইপিজিএল ইজি উইলসন, পারকিনস, জেসিবি, জ্যাক, গ্ল্যাড, স্টিলপ্যাক, জি-গ্যাস, জন ডিয়ার, সিমেন্স এবং আরও অনেক প্রতিষ্ঠানের সাথে যুক্ত রয়েছে।

ইপিজিএলের দুটি সাবসিডিয়ারি প্রতিষ্ঠান রয়েছে- এনার্জিপ্যাক পাওয়ার ভেঞ্চার লিমিটেড এবং ইপিভি চট্টগ্রাম লিমিটেড।

বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন-
ওয়েবসাইট: www.energypac.com
ফেসবুক: https://www.facebook.com/EnergypacZone/

খবর প্রেস বিজ্ঞপ্তির।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের কাপড়ের মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...