The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

সৌদি রাজকুমারীদের গৃহবন্দী অবস্থায় খাবার ও পানি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে!

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ রাজপ্রসাদ ছেড়ে প্রকাশ্য বাইরে যাওয়ার শাস্তি স্বরূপ দুই রাজকুমারীকে গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছে সৌদিআরবে। আর গত ৬০ দিন ধরে তাদের ঘরে আটকে রাখার সময় খাবার এবং পানি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সৌদি আরবের জেদ্দায় তাদের রাজপ্রাসাদের একটি কক্ষে আটকে রাখা হয়েছে।


jawaher_l_sahar_bg_648777369

সৌদী এই দুই রাজকুমারীর নাম সাহার, তার বয়স ৪২ বছর আর অপরজন জাওয়াহ তার বয়স ৩৮ বছর। সৌদি রাজকুমারীরা অভিযোগ করেন তাদের যে কক্ষে বন্দি করে রাখা হয়েছে সেই কক্ষের বাইরে তাদের কোথাও যেতে দেওয়া হচ্ছে না। তারা আরো বলেন গত ৬০ দিনের গৃহবন্দী অবস্থায় তাদের শুধুমাত্র পানি দেওয়া হতো, কোন খাবার দেওয়া হতো না। বাইরের পৃথিবীর সাথে তাদের একমাত্র যোগাযোগের রাস্তা হলো ইন্টারনেট। সাম্প্রতিক তারা রাশিয়ান টিভির কাছে তাদের এই অবস্থার কথা স্কাইপের মাধ্যমে তুলে ধরেন। এরপর তাদের অবস্থা আরো ভয়াবহ হয়ে পড়ে। সাম্প্রতিক তাদের কক্ষের বিদ্যুতের সংযোগ কেটে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া তাদের দেওয়া পানির সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ফলে তারা এখন প্রায় মরণাপন্ন। তারা শারীরিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছেন।

এদিকে তাদের মা আলানাউত আল ফায়েজ তাদের পিতা আব্দুল্লাহর সাথে ছাড়াছাড়ি হয়ে যাওয়ার পর লন্ডনে চলে গিয়েছেন। তিনি সেখান থেকে তার সন্তানের মুক্তির জন্য যুক্তরাষ্ট্র সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন। তিনি একটি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, সৌদি বাদশাহ আবদুল্লাহ তার মেয়েদের সাথে খুব খারাপ আচরণ করেছেন। তিনি তাদের খাবার ও পানি বন্ধ করে দিয়েছেন। কিন্তু সৌদি সরকার এই বিষয়টি অস্বীকার করে আসছে। তারা বলছে, রাজকুমারী দুইজন বেশ ভালো এবং সুস্থ রয়েছে। তারা মুক্তভাবে চলাফেরা করতে পারছে।

এর আগে সাহার এবং তার বোন জাওয়াহ সৌদি সরকারের বিদ্যমান বৈষম্যর সমালোচনা করেন। তারা সৌদি রাজ পরিবারের ছেলে সদস্যদের বহুবিবাহ এবং একপেশে নীতি বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তোলার হুমকি দিলে তাদের গৃহবন্দী করা হয়।

তথ্যসূত্রঃ ডেইলিমেইল

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...