এবার সন্ধান মিলেছে আদিম মানুষের ‘নতুন প্রজাতি’র!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ এবার সন্ধান মিলেছে আদিম মানুষের ‘নতুন প্রজাতি’র। বিজ্ঞানীরা ইথিওপিয়ার আফার অঞ্চলে এই প্রজাতির সন্ধান পেয়েছেন।

have yielded new species

আদিম মানুষের ‘নতুন একটি প্রজাতি’র সন্ধান পাওয়া গেছে। বিজ্ঞানীরা ইথিওপিয়ার আফার অঞ্চলে এই প্রজাতির সন্ধান পেয়েছেন। চোয়ালের হাড় এবং দাঁত উদ্ধার করেছেন গবেষকরা। এগুলো ৩৩ লাখ হতে ৩৫ লাখ বছর পূর্বের। ধারণা করা হচ্ছে, প্রাচীনকালে মানুষের অন্য প্রজাতিগুলোর সঙ্গে নতুন সন্ধান পাওয়া প্রজাতিটি বেঁচে ছিল। এগুলো উদ্ধারের পর বিজ্ঞানীরা বলছেন, এতো দিন যা ভাবা হচ্ছিল, তার চেয়েও মানুষের ‘ফ্যামিলি ট্রি’ আরও অনেক বেশি জটিল ও দুর্ভেদ্য। ন্যাচার জার্নালে এই নতুন প্রজাতি সম্পর্কিত গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে।

বিজ্ঞানীরা নতুন এই প্রজাতির বৈজ্ঞানিক নাম দিয়েছেন, ‘অস্ট্রালোপিথেকাস ডেইরেমেডা’। ইথিওপিয়ার আফার অঞ্চলের মানুষের আঞ্চলিক ভাষায় এর অর্থ দাঁড়ায় ‘ঘনিষ্ট আত্মীয়’।

প্রাচীন মানুষের নতুন প্রজাতির যে ধ্বংসাবশেষ পাওয়া যায়, সেটি ৪ জন মানুষের। তাদের প্রত্যেকেরই শিম্পাঞ্জি এবং মানুষের আকৃতি ছিল। অস্ট্রালোপিথেকাস ডেইরেমেডা প্রজাতির মানুষ হয়তো এমনই ছিল।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে,যুক্তরাষ্ট্রের ক্লিভিল্যান্ড মিউজিয়াম অব ন্যাচারাল হিস্ট্রির ফিজিক্যাল অ্যানথ্রপলোজি বিভাগের এক পরিচালক ইয়োহানেস হাইলি সেলাসসি বলেছেন, প্রাপ্ত দাঁত এবং দুই পাটির চোয়ালে শরীরবিদ্যা ও অঙ্গসংস্থানবিদ্যার আলোকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়ে দেখা গেছে যে, এগুলোর মধ্যে স্পষ্ট কিছু পার্থক্য রয়েছে। হাইলি সেলাসসি এই গবেষণায় নেতৃত্ব দেন।

হাইলি সেলাসসি আরও বলেন, ‘নতুন সন্ধান পাওয়া এই প্রজাতির মানুষের চোয়াল ছিল অনেক বড়। তবে চোয়ালের তুলনায় তাদের দাঁত ছিল বেশ ছোট। আর ছেদক দন্ত (মাড়ি) ছিল খুবই ছোট।’ প্রাপ্ত ধ্বংসাবশেষ হতে অনুমান করা হচ্ছে, মানুষের ৪টি প্রজাতি একই সময় বেঁচে ছিল বলে গবেষকদের উদ্বৃতি দিয়ে সংবাদ মাধ্যমের খবরে উল্লেখ করা হয়।

Advertisements
Loading...