স্থলসীমান্ত চুক্তির নথি হস্তান্তরে ইতিহাস: ছিটমহলবাসীদের আনন্দ-উচ্ছ্বাস

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দু’দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে বর্তমানে ঢাকায়। প্রথম দিনেই স্থলসীমান্ত চুক্তির নথি হস্তান্তর হওয়ায় এক ইতিহাস সৃষ্টি হয়েছে। এ খবরে ছিটমহলবাসীরা আনন্দ-উচ্ছ্বাস করেছে।

agreement for transfer of documents

৬৮ বছর ধরে ছিটমহলবাসীর প্রত্যাশা আজ পূরণ হওয়ায় ছিটমহলবাসীদের মধ্যে বাঁধভাঙ্গা আনন্দ-উচ্ছ্বাস সৃষ্টি হয়েছে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দু’দিনের সফরের আজ শনিবার প্রথম দিনেই স্থলসীমান্ত চুক্তি স্বাক্ষর ও ২২টি সমঝোতা সই হয়েছে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, স্থলসীমান্ত চুক্তি স্বাক্ষরের মধ্য দিয়ে ইতিহাস তৈরি হলো। আজ শনিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে স্থলসীমান্ত চুক্তি স্বাক্ষর শেষে এক টুইটার বার্তায় মোদি এই মন্তব্য করেছেন।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আনুষ্ঠানিক মুখপাত্র বিকাশ স্বরূপ আরেক টুইটার বার্তায় বলেছেন, ‘আজকের স্মরণীয় এই দিনটিকে ‘ঐতিহাসিক’ বললেও খুব কম বলা হবে।’

নরেন্দ্র মোদির সফর উপলক্ষে আজ বিকেল ৩.৫০ মিনিটে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কার্যালয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোলকাতা-ঢাকা-আগরতলা এবং ঢাকা-শিলং-গৌহাটি বাস সার্ভিসের উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের পর ওই বাস দুটি গন্তব্যের উদ্দেশে যাত্রাও শুরু করে।

ছিটমহলবাসীদের মধ্যে স্থলসীমান্ত চুক্তি স্বাক্ষরের খবর পৌঁছানোর পর তাদের মধ্যে আনন্দ-উচ্ছ্বাস ছড়িয়ে পড়ে। তারা মিছিল করে আনন্দ-উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। দীর্ঘদিনের বন্দিদশা হতে তারা মুক্তভাবে বাংলাদেশের নাগরিক হয়ে নাগরিক সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে পারবেন ছিটমহলবাসী। দীর্ঘ ৬৮ বছরের সেই গ্লানি মুছে ছিটমহলবাসী নতুন করে স্বাধীনভাবে নাগরিক সুবিধা নিয়ে বাঁচার স্বপ্ন দেখছেন। আর তাই আজকের এই ঐতিহাসিক দিনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ছিটমহলবাসী অভিনন্দন জানিয়েছেন।

Advertisements
Loading...