The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

redporn sex videos porn movies black cock girl in blue bikini blowjobs in pov and wanks off.

‘ভারতের গোয়েন্দারাই কাশ্মীর বিচ্ছিন্নতাবাদীদের পেছনে অর্থ ঢালে’!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ পাকিস্তান ভারতের কাশ্মীর বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মদদ জোগায় বলে এতোদিন যে অভিযোগ করা হতো এবার তার উল্টো কথা শোনা গেলো। ভারতের গোয়েন্দারাই নাকি কাশ্মীর বিচ্ছিন্নতাবাদীদের পেছনে অর্থ যোগায়!

Amarjit Singh Dulat

আজকের কথা নয় বহু আগে থেকেই এমন অভিযোগ রয়েছে যে, জম্মু-কাশ্মীরের জঙ্গি এবং বিচ্ছিন্নতাবাদীদের পেছনে অর্থ ঢেলে ভারতবিরোধী তৎপরতা চালিয়ে আসছে পাকিস্তানী গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টার-সার্ভিসেস ইন্টিলিজেন্স (আইএসআই)। কিন্তু সেখার গুড়ে বালি দিয়ে এবার বলা হচ্ছে, ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলোই মূলত জম্মু-কাশ্মীরের জঙ্গি-বিচ্ছিন্নতাবাদীদের পেছনে অর্থ ঢালছে! আর সংবাদ মাধ্যমকে এই বিস্ফোরক তথ্য দিয়েছেন খোদ ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালাইসিস উইংয়ের (র) সাবেক প্রধান অমরজিৎ সিং দৌলতই। বিষয়টি নিয়ে বিশ্বজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে।

সাবেক প্রধান অমরজিৎ সিং দৌলতই বলছেন, ‘বিগত সময় ধরে জম্মু-কাশ্মীরের জঙ্গি, বিচ্ছিন্নতাবাদী এবং প্রধান সারির রাজনীতিকদের পেছনে অর্থ ঢেলে আসছে ভারতের গোয়েন্দা সংস্থাগুলোই। এই অর্থ ঢালা হয়েছে ন্যাশনাল কনফারেন্স (জেকেএন) এবং পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টির (পিডিপি) মতো শীর্ষ রাজনৈতিক দলগুলোর পেছনে। এইসব অঞ্চলের সার্বিক কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্যই এই অর্থ যোগান দেওয়া হয়েছে।’

সাবেক আইএসআই প্রধান অমরজিৎ সিং দৌলত আরও বলেছেন, ‘কেওই ঘুষের ঊর্ধ্বে নয়, না জঙ্গিরা, না রাজনীতিকরা, কিংবা বিচ্ছিন্নতাবাদীরা। বিগত সময়ে এদের সবাই গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর পক্ষ হতে অর্থ পেয়েছে। আমরা তাদের পেছনে অর্থ ঢালার কারণ হলো যে, আমরা প্রমাণ করতে চাই, আইএসআই যা করতে পারে (অর্থ যোগান), আমরা তাদের চেয়ে অনেক ভালো করতে পারি, কেবলমাত্র মানুষ হত্যা ছাড়া।’

কবে হতে এই অর্থ ঢালা হচ্ছে জঙ্গি-বিচ্ছিন্নতাবাদীদের পেছনে- এমন এক প্রশ্রে জবাবে দৌলত বলছিলেন, ‘১৯৯০ সালে জঙ্গি তৎপরতা শুরু হওয়ার পর হতে এই খাতে অর্থ ঢালা শুরু হয়। সে অর্থের পরিমাণ শ’ হতে লাখ রুপি ছুঁয়েছে। অবশ্য হুরিয়াতের কিছু নেতা এই অর্থ নেননি।’

‘র’ এর এই সাবেক প্রধান জানান, ‘তিনি কেবলমাত্র তার দায়িত্বকাল অর্থাৎ ২০০৪ সাল পর্যন্ত জঙ্গি-বিচ্ছিন্নতাবাদীদের অর্থ যোগান দেওয়া হয়েছিল- সে বিষয়টি নিশ্চিত করতে পারেন।’

হিন্দুস্তান টাইমসের সঙ্গে বিশেষ সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন ‘র’ এর একসময়ের প্রভাবশালী এই প্রধান। ১৯৮৮ সালে গোয়েন্দা অধিদফতরের একজন কর্মকর্তা হিসেবে জম্মু-কাশ্মীরে দায়িত্ব নেওয়া অমরজিৎ সিং দৌলত বিজেপির আগের আমলে ‘র’ এর প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ওই দায়িত্ব শেষে এক সময় তিনি ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা পদের দায়িত্ব পালন করেন।

উল্লেখ্য, সাবেক গোয়েন্দা প্রধান অমরজিৎ সিং দৌলত নিজের লেখা ‘কাশ্মীর; দ্য বাজপেয়ী ইয়ার্স’ বইটি প্রকাশের পূর্বে এই সাক্ষাৎকারটি দিলেন। মনে করা হচ্ছে, বইটিতে নিজের দায়িত্বকালের অভিজ্ঞতা নিয়ে বিস্তর লিখেছেন সাবেক এই গোয়েন্দা প্রধান অমরজিৎ সিং দৌলত।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...
sex không che
mms desi
wwwxxx