বাংলাদেশী রোবট এবার মহাকাশে আলো ছড়াবে!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বিজ্ঞান-প্রযুক্তিবিষয়ক রোবট প্রতিযোগিতায় এবার বিশ্বের কয়েকশ’ বিজ্ঞানযোদ্ধাকে হার মানিয়ে বিজয়ের পতাকা উড়িয়েছে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা। বাংলাদেশী রোবট এবার মহাকাশে আলো ছড়াবে!

Bangladeshi robot

বিজ্ঞান-প্রযুক্তিবিষয়ক রোবট প্রতিযোগিতায় এবার বিশ্বের কয়েকশ’ বিজ্ঞানযোদ্ধাকে হার মানিয়ে বিজয়ের পতাকা উড়িয়েছে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা। বাংলাদেশী রোবট এবার মহাকাশে আলো ছড়াবে! মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার ৪র্থ লুনাবোটিক্স মাইনিং প্রতিযোগিতায় রোবট বানিয়ে প্রযুক্তিবিষয়ক সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠ বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) শিক্ষার্থীরা এক অভাবনীয় সাফল্য দেখিয়েছেন।

Bangladeshi robot-2

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার মহাকাশকেন্দ্র ‘কেনেডি স্পেস সেন্টারে’ ২০১৩ সালের ২০ হতে ২৪ মে চতুর্থ বার্ষিক এই লুনাবোটিকস মাইনিং প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। বিভিন্ন দেশের সেরা সব বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা চাঁদে গিয়ে মাটি বা ধুলা সংগ্রহ করতে পারবে- এমন ধরনের রোবটযান নিয়েই প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। কাজ ও সামর্থ্যের দিক হতে যে রোবটটি বেশি সক্রিয় বা কার্যকর, ঠিক সেটিই থাকে আয়োজক কর্তৃপক্ষের নজরে। অংশগ্রহণকারী এসব রোবট হতেই যাচাই-বাছাই করে বেছে নেওয়া হয় সেরাটিকে। প্রতিযোগিতার জন্য অর্থাৎ রোবটের কাজের সামর্থ্য যাচাইয়ের জন্য তৈরি করা হয় কৃত্রিম চন্দ্রপৃষ্ঠও। সেখানে রাখা ধুলা তুলে এনে নির্ধারিত জায়গায় ফেলার সামর্থ্য পরীক্ষা করা হয় ওই প্রতিযোগিতায়। সেইসঙ্গে কাজের গতি, কত ওজনের ধুলাবালি নিতে পারে- তাও ছিল বিচারকদের বিবেচনার মধ্যে।

Bangladeshi robot-3

প্রতিযোগিতার প্রথম পর্বে বাংলাদেশের বুয়েট শিক্ষার্থীদের তৈরি মেকাট্রন রোবট টপ টেনে নিজেদের অবস্থান করে নেয়। এই রোবটটি ১০.৪ কেজি ধুলা সংগ্রহ করে। পরবর্তীতে যান্ত্রিক ক্রটির কারণে প্রতিযোগিতায় নিজেদের অবস্থান ধরে রাখতে সক্ষম হয়নি তারা। কারণ হিসেবে দলনেতা এম এম শায়ক ইবনে ফারুকি বলেছেন, টেকসাসে স্থানান্তরে খরচ বাবদ বাজেট অতিক্রম করায় আমাদের রোবটটিকে ৮ ভাগে ভেঙ্গে নেওয়া হয়। পরবর্তীতে সেখানে গিয়ে আবার জোড়া লাগালেও এতে কিছুটা ক্রটি থেকে যায়। যে কারণে প্রতিযোগিতার ৪ মিনিটের সময় চেইন ছিঁড়ে যায়। এই প্রতিযোগিতা হতে নতুন অভিজ্ঞতা হওয়ায় তারা এবার চেনবিহীন রোবট তৈরি করে রোভার প্রতিযোগিতা অংশ নেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

জানা গেছে, ‘ইউরোপিয়ান রোভার চ্যালেঞ্জ’ (ইআরসি) নামে পোল্যান্ডের একটি আন্তর্জাতিক সংস্থা এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে। ইউরোপের বৃহত্তর মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘রোবোটিক্স ইভেন্ট ইআরসি’ বিজ্ঞানের এই মিলনমেলা আয়োজক।

দুদিনের এ ইভেন্টের মধ্যে রয়েছে ‘আন্তর্জাতিক মঙ্গল রোভার প্রতিযোগিতা’ ও ‘বিজ্ঞান-প্রযুক্তি প্রদর্শনী’। এতে ইউরোপিয়ান স্পেস ফাউন্ডেশনসহ বড় বড় সব টেকগুরু ইভেন্ট আয়োজন করে থাকে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নেদারল্যান্ডস, কানাডা, স্পেন, ইতালি, অস্ট্রেলীয়া, বাংলাদেশ, তুরস্ক, কলম্বিয়া, ভারত এবং মিসর হতে মোট ৩৪টি দল আন্তর্জাতিক মার্স রোভার প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করবে। এই প্রতিযোগিতা মাঠে গড়াবে আগামী ৫ ও ৬ সেপ্টেম্বর পোল্যান্ডে। বুয়েট হতে অংশগ্রহণকারী দলের নাম ‘ইন্টারপ্ল্যানেটার্স’। অনুষদের ১৭ জনের একটি দল এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিবে। তাদের রোভার বালিসংগ্রহ, পাথরসংগ্রহ ও মাটির গভীরে ছিদ্র করে নমুনা সংগ্রহ করে তথ্য পাঠানোর কাজ করে। বুয়েটের মেকানিক্যাল এবং ইলেকট্রিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২৭ সদস্য মিলে এটি তৈরি করেছেন। আগামী ১ সেপ্টেম্বর এই দলটি রওনা দেবে বলে জানা গেছে।

Advertisements
Loading...