এবার প্রাণ বাঁচাবে ৩ডি প্রিন্টেড ধমনী!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আবারও সেই একই ধরনের খবর। এবার খবরে বলা হয়েছে প্রাণ বাঁচাবে ৩ডি প্রিন্টেড ধমনী! ৩ডি প্রিন্টেড মডেলের সহায়তায় এক নারীর জীবন রক্ষাকারী অস্ত্রপচার পরিচালনা করেছেন চিকিৎসকরা।

will save lives of 3-D printed artery

সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, এক নারীর মস্তিষ্কের ভেতর থাকা ধমনী ৩ডি প্রিন্টেড মডেলের সহায়তায় সম্প্রতি তার জীবন রক্ষাকারী অস্ত্রপচার পরিচালনা করেছেন চিকিৎসকরা।

জানা গেছে, ওই রোগীনির মাথার ভেতরে ধমনীর প্রাচীরে ফুলে যাওয়া একটি অংশ ঠিক করতে এই অস্ত্রপাচারটি করা হয়। চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় এ সমস্যাটিকে বলা হয় অ্যানিউরিজম। শল্যচিকিৎসকদের প্রচলিত উপায়ে এটির অস্ত্রপচার করলেও ঠিক করা যেতো না।

এতে বলা হয়, দৃষ্টিসমস্যা এবং মাথাব্যাথায় ভোগার পর নিউ ইয়র্ক অধিবাসী থেরেসা ফ্লিন্ট-এর এমন সমস্যা ধরা পড়ে। প্রচলিত উপায়ে চিকিৎসা ব্যবস্থায় প্রাণনাশের ভয় থাকায়, এটি চিকিৎসাহীন অবস্থায় রেখে দেওয়া হয়েছিল।

জানানো হয়, প্রচলিত উপায়ে ধমনী প্রাচীরে শক্তি যোগানোর জন্য একটি ধাতব ঝুড়ি বসানো হয় বলে জানিয়েছেন এই চিকিৎসা পরিচালনাকারী দলের প্রধান মেডিক্যাল কর্মকর্তা ড. আদনান সিদ্দিকী।

তিনি আরও বলেন, ‘ওই অবস্থায় এটি এতো সাংঘাতিক একটি সমস্যা হয়েছিল যে, সে প্রচণ্ড অস্বাভাবিক অ্যানিউরিজমে ভুগছিলেন, যা মাইক্রো-সার্জারির মাধ্যমে অনেক কৌশলে করতে হতো।’

চিকিৎসক জানান, সুবিধার জন্য ৩ডি প্রিন্টিং বিশেষজ্ঞ স্ট্রাটাসিসের সহায়তায় ফ্লিন্টের মস্তিষ্কের স্ক্যাণ হতে ৩ডি প্রিন্টেড মডেল বানানো হয়। যে কারণে অপারেশন নিয়ে পরিকল্পনা করতে একটি রেপ্লিকা পান চিকিৎসকরা।

ড. সিদ্দিকী আরও বলেন, ‘আমরা যখন ওই প্রক্রিয়ায় কাজ করছিলাম, তখন আমরা বুঝতে পারি যে, আমরা ব্যবহার করতে চাই এমন কিছু যন্ত্রপাতি বদলাতে হবে। সার্জারির দিন আমরা ভালো কিছু করতে চেষ্টা করেছি।’ এই চিকিৎসা পদ্ধতির ফলে জটিল এই রোগটি যেমন দূর হবে অর্থাৎ প্রাণ বাঁচাবে ৩ডি প্রিন্টেড ধমনী!

Advertisements
Loading...