বৈষ্ণধর্মালম্বীদের অন্যতম তীর্থস্থান বিথঙ্গল আখড়া

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ শুভ সকাল। আজ বুধবার, ৯ মার্চ ২০১৬ খৃস্টাব্দ, ২৬ ফাল্গুন ১৪২২ বঙ্গাব্দ, ২৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৭ হিজরি। দি ঢাকা টাইমস্ -এর পক্ষ থেকে সকলকে শুভ সকাল। আজ যাদের জন্মদিন তাদের সকলকে জানাই জন্মদিনের শুভেচ্ছা- শুভ জন্মদিন।

Bithangala gymnasium

যে ছবিটি আপনারা দেখছেন সেটি বৈষ্ণধর্মালম্বীদের জন্য অন্যতম তীর্থস্থান বিথঙ্গল আখড়া। এটি হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলা সদর হতে ১২ কি.মি. দক্ষিণ-পশ্চিম হাওড় পাড়ে বিতঙ্গল গ্রামে অবস্থিত।

বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থানের মধ্যে বিথঙ্গল আখড়া বৈষ্ণধর্মালম্বীদের একটি অন্যতম তীর্থস্থান। এর প্রতিষ্ঠাতা রামকৃষ্ণ গোস্বামী। তিনি উপমহাদেশের বিভিন্ন তীর্থস্থান সফর করার পর ষোড়শ শতাব্দীতে ওই স্থানে আখড়াটি প্রতিষ্ঠা করেন।

এতে ১২০ জন বৈষ্ণবের জন্য ১২০টি কক্ষ রয়েছে। এই আখড়ায় বিভিন্ন ধরণের ধর্মীয় উৎসব হয়ে থাকে। তারমধ্যে কার্তিকের শেষ দিনে ভোলা সংক্রান্তি উপলক্ষে কীর্তন, ফাল্গুনের পূর্ণিমা তিথিতে দোল পূর্ণিমা শেষ হওয়ার ৫ দিন পর পঞ্চম দোল উৎসব, অপরদিকে চৈত্রের অষ্টমী তিথিতে আখড়া সংলগ্ন ভেড়ামোহনা নদীর ঘাটে ভক্তগণের পূণ্যস্নান এবং বারুনী মেলা, আষাড় মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে রথযাত্রা বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

এই আখড়ার দর্শনীয় স্থানসমূহের মধ্যে ২৫ মন ওজনের শ্বেত পাথরের চৌকি, সুসজ্জিত রথ, পিতলের তৈরি সিঙ্ঘাসন, রৌপ্য পাত্র ও সোনার মুকুট বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। মধ্যযুগীয় স্থাপত্যশৈলীর অনুকরণে নির্মিত এই আখড়াটি পর্যটকদের জন্য একটি দর্শনীয় স্থান হিসেবে পরিগণিত হয়ে থাকে। প্রতিদিন শত শত পর্যটক আসেন এখানে। মধ্যযুগীয় স্থাপত্যশৈলীর এই নিদর্শন দেখে অভিভূত হন।

ছবি ও তথ্য: www.habiganjinfo.com এর সৌজন্যে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...