লন্ডনে জুনে চালু হচ্ছে নগ্ন রেস্তোরাঁ!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আধুনিকতার ছোঁয়ায় বিশ্বময় ক্রমেই হয়ে উঠছে এক বিভীষিকাময় বিশ্বে। কালে কালে আমাদের আর কতো কিই না দেখতে হবে। এবার শোনা গেলো লন্ডনে নাকি আগামী জুনে চালু হচ্ছে নগ্ন রেস্তোরাঁ!

naked restaurants in London

আগামী জুনে লন্ডনে চালু হচ্ছে অদ্ভুত এক রেস্তোরাঁ। ওই রেস্তোরাঁয় যারা রাতের খাবার খেতে যাবেন তাদেরকে হতে হবে পুরোপুরি নগ্ন! শরীরে পোশাক বলতে কোন কিছুই থাকবে না তাদের। এমন একটি রেস্তোরাঁ চালু করতে যাচ্ছে সেখান কার এক ব্যবসায়ী।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, হোটেল কর্তৃপক্ষ এমন এক প্রস্তাব দেওয়ার পর তাতে নাকি ব্যাপক সাড়াও পড়েছে! ইতিমধ্যে সেখানে নৈশভোজ করার আগ্রহ জানিয়ে সাইনআপ করেছেন অন্ততপক্ষে ৩২ হাজার। বিষয়টি উদ্ভট শোনালেও ঘটনাটি আসলেও সত্যি। ওই রেস্তোরাঁর নাম দেওয়া হয়েছে ‘বুনিয়াদি’। আসলে কিনে বুনিয়াদ হতে ওই রেস্তোরাঁতে তা শুধু তারাই জানেন! এটি চালু হচ্ছে আগামী জুনে।

যুক্তরাজ্যে এই প্রথমবারে মতো এমন একটি রেস্তোরাঁ চালু হতে চলেছে। লন্ডনের কেন্দ্রীয় অঞ্চলে অবস্থিত এই রেস্তোরাঁটি।

বলা হয়েছে, এখানে আগতদের দেওয়া হবে গাউন। সেইসঙ্গে থাকবে কাপড় পাল্টে নেওয়ার রুমও। থাকবে খুলে রাখা কাপড়ের জন্য পৃথক পৃথক লকার। একসঙ্গে এই রেস্তোরাঁয় নৈশভোজ করতে পারবেন মাত্র ৪২ জন। যে কারণে চাইলেই যেকেও এখানে ঢুকে খাবার খাওয়া কিংবা নগ্নতায় মেতে উঠতে পারবেন না। আগ্রহীকে অবশ্যই বুকিং সিরিয়াল অনুযায়ী তার জন্য অপেক্ষায় থাকতে হবে। তবে ইতিমধ্যে এতো সাড়া পেয়ে বিস্মিত উদ্যোক্তা কোম্পানি লোলিপপ।
তারা বলেছেন, মানুষ নগ্ন হতে ভালবাসে আমরা জানতাম। সেটা হোক কোন সমুদ্র সৈকত কিংবা স্টিম বাথ। তবে হোটেলে বলে নগ্ন হওয়ার বিষয়টি এই প্রথম জানা গেলো।’

কর্তৃপক্ষ বলেছে, এই রেস্তোরাঁয় খাবার এবং পানীয়ের জন্য মাথাপিছু বিল দিতে হবে ৯৫ ডলার। তবে কেও যদি অর্ধনগ্ন হয়ে খাবার খেতে চান তার জন্যও পৃথক ব্যবস্থা রয়েছে। তাদেরকে সেমি ন্যাকেড এলাকায় খাবার পরিবেশন করার ব্যবস্থা রাখা হবে। তাদেরকে খাবার পরিবেশন করবে কর্মরত অর্ধনগ্ন স্টাফরা। তবে এখানে কোনো অবস্থাতেই সেলফি তোলা যাবে না।

কর্তৃপক্ষ আরও বলেছে, উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে তাদের রেস্তোরাঁ পরিচালিত হবে বিদ্যুৎ ও গ্যাস ছাড়াই। এখানে জ্বলবে মোমবাতি। মোমের মিষ্টি আলোয় আগতরা স্বাচ্ছন্দ্যে ঘুরবেন- খাবেন। কাঠের আগুনে রান্না হবে আমিষ এবং নিরামিষ খাবার। এ সময় শেফের পোশাক বলতে থাকবে মাথায় হেয়ারনেট আর শরীরে থাকবে এপ্রোন। এভাবেই অতিথিদের আপ্যায়ন করা হবে বলে জানিয়েছেন এই রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষ।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...