ঈদের নাটক: চ্যানেল ৯ এ প্রচারিত হবে ‘বেবি আপা’

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মাসুম রেজার রচনায় নাজনীন হাসান চুমকির পরিচালনায় ঈদের দিন চ্যানেল ৯ এ রাত ৭:৪০ মিনিটে প্রচারিত হবে নাটক ‘বেবি আপা’।

Baby Apa

মাসুম রেজার রচনায় নাজনীন হাসান চুমকির পরিচালনায় ঈদের দিন চ্যানেল ৯ এ রাত ৭:৪০ মিনিটে প্রচারিত হবে নাটক ‘বেবি আপা’।

কাহিনী সংক্ষেপ:

নাটকটা ঈদ উপলক্ষ্যে রচিত হবে তাই কিছুটা হিউমার দিয়ে শুরু হবে সাথে জীবনের কিছু কঠিন বিষয়ও থাকবে এ নাটকে। বেবি আপা চল্লিশ পেরোনো এক নারী। চাকরি করেন মহল্লার ভিতরেই একটা রড সিমেন্টের দোকানে। ক্যাশিয়ার এর চাকরি। বেবি আপা বিবাহিত। স্বামী গত একবছর ধরে বেকার। যে চাকরিটা করতো সেটা চলে যাওয়ার পর আর চাকরি পাচ্ছেননা। বেবি আপার বেতনেই সংসার চলে। বেবি আপার সংসারের সবচেয়ে বড় বিষয় হলো স্বামী স্ত্রী দুজনে মিলে তারা খুবই সুখী দম্পতি। কারো বিরুদ্ধে কারো অভিযোগ নাই। দারুণ তাদের পারস্পরিক সম্পর্ক। স্বামী প্রতিদিন চাকরি খুঁজতে যায় ফিরে আসে ব্যার্থ হয়ে।এ নিয়ে দুজনের ভিতরে বেশ হাসি ঠাট্টা হয়। তবে বেবি আপার আসল কারিসমা অন্য জায়গায়। মহল্লার ভিতরে তিনি ভিষণ জনপ্রিয়। নাটকের গল্পটা সেদিকেই নজর দেবে বেশী।বেবি আপা সকালে অফিস যাওয়ার আগে বা অফিস শেষ করে ফিরে বা অফিস থেকে নানা বাহানায় ছুটি নিয়ে এসে মহল্লাবাসীর উপকার করেন। উপকার করা তার নেশা। মহল্লার কারো কাজের বুয়া দরকার হলে সরাসরি খোঁজ পড়ে বেবি আপার। বেবি আপাকে বললেই বুয়া সমস্যার সমাধান। কোন বুয়ার বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ এলে বেবি আপা নিজে ইনভেস্টিগেশন করেন। মহল্লায় যারা শাকসব্জি মুরগী ইত্যাদি ফেরি করে তাদের উপর সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ বেবি আপার।কেউ বেশী দাম নিতে পারবে না। খারাপ জিনিস দিলে পরদিন পয়সা ফেরৎ দিতে হবে। মহল্লার ভিতরের মার্কেটে সবাই বেবি আপাকে সাথে নিয়ে যায়। সবকিছুর দাম বেবি আপার মুখস্ত। কোনো দোকানদার বেশী দাম নিতে পারে না। উপরন্তু বেবি আপা মার্কেটে আসলে তার কথার তোড়ে কেনা দামেও জিনিস বিক্রি করতে হয় তাদের। তাই বেবি আপা যখনই মার্কেটে আসার খবর হয় তখনই দোকানের মালিক দোকান ছেড়ে দূরে চলে যায় যাতে বেবি আপা কর্মচারীর কাছ থেকে জিনিস কেনেন কারণ কর্মচারী কমদামে জিনিস বিক্রি করতে পারবেনা।মহল্লার সবাইকে নিয়ে বেশ হাসি আনন্দে বেবি আপার দিন কাটলেও একদিন একটা অঘটন ঘটে যায়। ঠিক ঈদের চারদিন আগে সিমেন্ট লোহার দোকানের একটা পেমেন্ট করবার সময় বেবি আপা ভুল করে একলাখ দশহাজার টাকা বেশি পেমেন্ট করে ফেলে একটা সাপ্লায়ারকে। ব্যাপারটা জানাজানি হওয়ার পরে সেই সাপ্লায়ারকে বলা হলে সাপ্লায়ার অস্বিকার করে বেশি পেমেন্টের কথাটা। ফলে টাকাটা বেবি আপাকে দিতে হবে নাহলে তার জেল জরিমানা হবে। কারণ মালিক মনে করেন বেশি পেমেন্টের বিষয়টার সাথে বেবি আপা নিজেও জড়িত। বেবি আপা ভিষন বেকায়দায় পড়ে যান। ভিষন অপমান বোধ করেন। তার কাছে তেমন কোনো জমানো টাকা নেই যে টাকাটা তিনি দিতে পারবেন। ঈদের আগের দিন। বেবি আপাকে থানায় ডেকে পাঠানো হয়েছে বিষয়টা ইনভেস্টিগেশন এর জন্য।

বেবি আপাকে থানায় যেতে হবে এটা বেবি আপা এবং তার স্বামী কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না। তারপরেও দুজনে মিলে বার হন। কিছুদূর যেতেই সিমেন্ট লোহার দোকানের এক কর্মচারী ছুটে এসে খবর দেয় মালিক বেবি আপাকে দেখা করতে বলেছে। বেবি আপা যায়। সেখানে যেয়ে জানতে পারে সকালে মহল্লার সবাই মিলে চাঁদা দিয়ে খোয়া যাওয়া টাকাটা তারা মালিককে দিয়ে গেছে। মালিক বলে ঈদের ছুটি কাটিয়ে যেনো বেবি আপা কাজে যোগ দেন। বেবি আপা তাৎক্ষনিক চাকরিটা ছেড়ে দেন। কারণ সারা জীবন সে সৎ থাকার চেষ্টা করেছে অথচ মালিক তাকে সন্দেহ করেছে। পুলিশে জানিয়েছে। বেবি আপা আর তার স্বামী বাসায় ফিরে আসেন। দুজনেরই চাকরি নাই। জীবনের এই পরিহাসটা তাদের কাছে হাস্যকর লাগে। দুজনেই হেসে ওঠে। আর বেবি আপা বলেন, ‘সারা জীবন মানুষের উপর বিশ্বাস রেখেছি। সে বিশ্বাস কোনদিন বৃথা যাবেনা। আমি তাদের মুখে হাসি ফুটিয়েছি, নিশ্চয় তারাও আমার মুখের হাসি মিলিয়ে যেতে দেবেনা’।

নাটক: বেবি আপা
রচনা: মাসুম রেজা
পরিচালনা: নাজনীন হাসান চুমকি
অভিনয়: তারিন, সাঈদ বাবু ও অনেকে।
প্রচার তারিখ: ঈদের দিন
সময়: রাত ৭:৪০ মি:
চ্যানেল: চ্যানেল ৯
পরিবেশনা: দৃক
প্রযোজনা: পি আর প্রোডাকশন

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...