The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মোবাইল ফোন গ্রাহকদের জন্য ‘ডোন্ট ডিস্টার্ব’ সিস্টেম চালু হচ্ছে

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ বাংলাদেশে এই প্রথমবারের মতো মোবাইল ফোন গ্রাহকদের অধিকার সংরক্ষণে গ্রাহক স্বার্থ রক্ষা নীতিমালা তৈরি করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। খসড়া এই নীতিমালায় অনাকাঙ্ক্ষিত মোবাইল কল এবং এসএমএস’র বিরক্তি থেকে গ্রাহকদের মুক্তি দিতে রয়েছে ‘ডোন্ট ডিস্টার্ব’ বিধিমালা। এটি চালু হলে গ্রাহকরা সারাদিনের অনাকাঙ্খিত এসএমএস ও কল থেকে মুক্তি পাবেন।

cell-phone

গ্রাহকদের কাছে সেলফোন অপারেটরদের জবাবদিহীতা নিশ্চিত করতে নেটওয়ার্ক সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আগাম বার্তা নির্দেশনা। বিটিআরসি’র সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। সূত্রটি জানিয়েছে নীতিমালাটি এখন চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি পেলেই বিটিআারসি এটা বাস্তবায়ন করবে বলে জানা গেছে।

খসড়া নীতিমালার ‘ডোন্ট ডিস্টার্ব’ বিধি কার্যকর হলে গ্রাহককে এসএমএস’র মাধ্যমে টেলিমার্কেটিং কোম্পানির বিজ্ঞাপন কিংবা প্রমোশনাল বার্তা বা ফোন কল দিতে হলে গ্রাহকের পূর্ব অনুমতি লাগবে। বাণিজ্যিক এই সেবা নিতে এসএমএসের মাধ্যমে রেজিস্টেশন করতে হবে গ্রাহককে। একই সঙ্গে নির্দিষ্ট চার্জও পরিশোধ করতে হবে।

জানা গেছে, খসড়া নীতিমালায় একটি ‘শর্ট কোড’ দিয়ে এ সেবার আওতায় এ ধরনের এসএমএস বা ফোন কল পুরোপুরি ব্লক না করে বিভিন্ন বিভাগ অনুযায়ী ব্লক করে দেয়ার সুযোগ থাকছে। কোনো গ্রাহক যদি এ সেবা বাদ দিয়ে পুরনো অবস্থায় ফিরে যেতে চায় তাহলে একই শটকোর্ড ব্যবহার করে গৃহীত সেবা বাতিলও করতে পারবেন বলে জানানো হয়েছে।

খসড়া এই নীতিমালা বাস্তবায়ন হলে বিদ্যমান কোনো সেবা সংস্কার বা বন্ধ রাখতে হলে মোবাইল ফোন অপারেটরদের গ্রাহকদের আগে থেকেই এসএমএস, ফোন বা দৈনিক পত্রিকার বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে জানাতে হবে। গ্রাহকদের অনুমতি ছাড়া কাওকে তার ব্যক্তিগত তথ্য দিতে পারবে না সেলফোন অপারেটররা। একই সঙ্গে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের যে কোনো ধরনের ভাইরাস থেকে মুক্ত রাখতেও উদ্যোগ নিতে হবে অপারেটরদের। এছাড়াও বিলসংক্রান্ত জটিলতা নিরসনে কমপক্ষে ছয় মাসের বিল ওয়েবসাইটে গ্রাহক হিসাবে জমা রাখতে হবে।

উল্লেখ্য, সামপ্রতিক সময়ে সেলফোন অপরেটররা সারাদিন লাগামহীনভাবে গ্রাহকদের এসএমএস বা ভয়েজ কল দিয়ে তাদের অফার দিয়ে গ্রাহকদের চরমভাবে ত্যাক্ত করছে। এই সিস্টেম চালু হলে অন্তত সেলফোন কোম্পানির ডিস্টার্ব থেকে গ্রাহকরা মুক্তি পাবে বলে গ্রাহকরা মনে করছেন। এছাড়াও অনাকাঙ্খিত নানা এসএমএস থেকেও রেহাই পাবেন গ্রাহকরা।

তথ্যসূত্র: বাংলাদেশ নিউজ২৪ডটকম/ নতুন বার্তা/আইএইচ/জাই।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...