ভারতের বিতর্কিত ধর্ষক রাম রহিমের কয়েকটি অনাজা বিষয়

সমাজের সামনে নিজেকে ধর্মগুরু হিসেবে দাবি করেন গুরমিত রাম রহিম সিং

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সম্প্রতি ভারতের ধর্মগুরু হিসেবে নিজেকে দাবি করা রাম-রহিমের অনেক বিষয়ই এখন পত্রিকা পাতা খুললে চোখে পড়ছে। ভারতের বিতর্কিত ধর্ষক রাম রহিমের কয়েকটি অনাজা বিষয় রয়েছে আজ।

সমাজের সামনে নিজেকে ধর্মগুরু হিসেবে দাবি করেন গুরমিত রাম রহিম সিং। তিনি দেশটির আদালতে ধর্ষণ মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। এরই জের ধরে ভারতের একাধিক শহরে শুরু হয়েছে ব্যাপক সহিংসতা। হরিয়ানার পঞ্চকুলায় এ পর্যন্ত নিহত হয়েছে অন্তত ৩০ জন।

তবে এখনও প্রশ্ন রয়েছে অনেক। আসলে কে এই রাম রহিম সিং? এতো প্রভাবই বা তিনি পেলেন কোথা থেকে? টাইমস অব ইন্ডিয়া, বিবিসি, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসসহ ভারতের বিভিন্ন গণমাধ্যমে উঠে এসেছে রাম রহিম সম্পর্কে আজব সব তথ্য।

দি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস পত্রিকা ২০১৫ সালে ভারতে সবচেয়ে বেশি ক্ষমতাধর ১০০ জনের একটি তালিকা তৈরি করে। ওই তালিকার একজন হলেন রাম রহিম সিং। ভারতের উত্তরাঞ্চলের রাজ্য হরিয়ানার সিরসায় থাকেন রাম রহিম। ‘দেরা সাচ্চা সৌদা’ নামে একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার রাম রহিম। তাঁর দাবি হলো, এটি হলো আধ্যাত্মিক প্রতিষ্ঠান। ভারত, কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র, সংযুক্ত আরব আমিরাত, অস্ট্রেলিয়া এবং যুক্তরাজ্যে ওই প্রতিষ্ঠানের মোট ৪৬টি আশ্রমও রয়েছে। ওই প্রতিষ্ঠানের তিনি দায়িত্ব নেন ১৯৯০ সালে। রাম রহিম সিং আরও দাবি করেছেন, সারাবিশ্বে তাঁর ৬ কোটি অনুসারী রয়েছে।

তিনি কেবলমাত্র আধ্যাত্মিক গুরু নন। রাম রহিম সিং বহুমাত্রিক গুণের অধিকারীও। অন্তত তাঁর ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্যে তাই বলা হয়েছে। সেখানে লেখা রয়েছে তিনি একজন আধ্যাত্মিক সাধু, লেখক, গায়ক, সংগীতজ্ঞ, পরিচালক, বিজ্ঞানী, ইয়ুথ আইকন, নারীবাদী, সাহিত্যিক, খেলোয়াড়, পুষ্টিবিদ এমনকি সমাজ সংস্কারকও!

ভারতে ৩৬ জন ভিভিআইপি মান নিয়ে চলাফেরা করেন। রাম রহিম তাঁদের মধ্যে একজন। রাম রহিম একজন বিবাহিত। তিনি দুই মেয়ে এবং এক ছেলে সন্তানের জনক।

৪টি চলচ্চিত্রও নির্মাণ করেছেন রাম রহিম। নিজে এসব চরিত্রে আবার অভিনয় করেছেন। এসব চলচ্চিত্রে তিনি বিভিন্ন অ্যাকশনধর্মী চরিত্রে অভিনয় করেছেন। এসব ছবিতে তিনি বেশ রঙিন পোশাক পরেন, এমনকি মোটরসাইকেল চালিয়ে বিভিন্ন অ্যাকশনও দেখান!

রাম রহিম গানও গেয়েছেন। এসব গান মিউজিক ভিডিও আকারে প্রচারিতও হয়েছে ব্যাপকভাবে। চলচ্চিত্রে অভিনয়ের ব্যাপারে কয়েক বছর পূর্বে একটি সাক্ষাৎকারে রাম রহিম জানিয়েছিলেন, যুব সম্প্রদায় ধর্মীয় আলোচনা না শুনে সিনেমা হলে চলে যায়। এই কারণে তিনি ওই মাধ্যম ব্যবহার করে তরুণদের কাছে চলে গেছেন।

রাম রহিম চলচ্চিত্রের জন্য ভারতের গুরুত্বপূর্ণ স্বীকৃতি দাদাসাহেব ফালকে অ্যাওয়ার্ডও পেয়েছেন! এছাড়াও একটি বিশ্ববিদ্যালয় তাঁকে সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রিও দিয়েছে!

রাম রহিমের বিশ্বরেকর্ড করাতে কোনো জুড়ি নেই। ৫৩টি বিষয়ে বিশ্বরেকর্ড করেছেন রাম রহিম। এর ১৯টির স্বীকৃতি দিয়েছে স্বয়ং আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান ওয়ার্ল্ড গিনেজ বুক! এরমধ্যে রয়েছে রক্তদানের জন্য সবচেয়ে বড় আয়োজন করা, বড় শুভেচ্ছা কার্ড তৈরি, বৃহৎ চক্ষু সেবাদান কেন্দ্র করার মতো কর্মকাণ্ড।

রাম রহিমের বিরুদ্ধে পূর্বেকার ওঠা অভিযোগ

তবে অভিযোগ ও বিতর্কও বেশ কয়েকবার উঠেছে রাম রহিমকে নিয়ে। ২০০২ সালে প্রথম তাঁর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে। এই বিষয়ে বেনামে একটি চিঠি পাঠানো হয় তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারি বাজপেয়িকে। ওই সময়ই ‘দেরা সাচ্চা সৌদা’র ব্যবস্থাপকদের একজন রণজিৎ সিং নিহত হন। ওই হত্যাকাণ্ডের অভিযোগের তীরও প্রতিষ্ঠানের প্রধান রাম রহিমের বিরুদ্ধে ওঠে।

এরপর ২০১২ সালের কথা। সে সময় আশ্রমের ৪০০ সাধুকে নপুংসক করে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে ‘দেরা সাচ্চা সৌদা’র বিরুদ্ধেও। প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার রাম রহিম ওই নির্দেশ দিয়েছেন বলে অভিযোগ ওঠে।

সাংবাদিক রামচন্দ্র ছত্রপতি নিহত হন ২০০২ সালে। তিনি ‘দেরা সাচ্চা সৌদা’র কর্মকাণ্ড নিয়ে ব্যাপকভাবে লেখালেখি শুরু করেছিলেন। তদন্তে ওই প্রতিষ্ঠানের কিছু অবৈধ কর্মকাণ্ডের বিষয়ও বের করে আনেন তিনি। ওই সাংবাদিক হত্যা মামলাতেও রাম রহিম অভিযুক্ত হন।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...