কেনো মৃতদেহ হতে রক্ত নেওয়া হয় না জানেন?

মানুষ মারা যাওয়ার পর চোখ, কিডনির মতো দেহের আরও অনেকগুলো অঙ্গ নেওয়া যায়। কিন্তু রক্ত নেওয়া যায় না

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আমরা সকলেই জানি মৃতদেহ হতে কখনও রক্ত নেওয়া হয় না। কিন্তু কেনো মৃতদেহ হতে রক্ত নেওয়া হয় না তা আমাদের জানা নেই। আজ জেনে নিন কেনো মৃতদেহ হতে রক্ত নেওয়া হয় না।

মানুষ মারা যাওয়ার পর চোখ, কিডনির মতো দেহের আরও অনেকগুলো অঙ্গ নেওয়া যায়। কিন্তু রক্ত নেওয়া যায় না। কিন্তু কেনো মৃত ব্যক্তির রক্ত নেওয়া যায় না, সেই বিষয়টি আমাদের সকলের অজানা।

পৃথিবীতে রক্তের চাহিদার তুলনায় রক্তদাতার পরিমাণ অনেক কম। তাহলে কেনো মৃত মানুষ হতে রক্ত সংরক্ষণ করে রক্তের চাহিদা মেটানো যায় না?

মৃত মানুষের চোখ, কিডনিসহ অন্যান্য অঙ্গ সংরক্ষণ করা গেলেও কেবলমাত্র সংরক্ষণ করা যায় না রক্ত। কারণ মৃতদেহ হতে রক্ত সংগ্রহে রয়েছে বেশ কিছু জটিলতা।

মানবদেহের মৃত্যুর পর রক্ত খুব দ্রুতই নষ্ট হয়ে যায়। মারা যাওয়ার পর দেহের স্বাভাবিক ক্রিয়া বন্ধের সঙ্গে সঙ্গে কার্বন ডাই অক্সাইড, ল্যাকটিক এসিডসহ অন্যান্য বস্তু দূষিত পদার্থ তখন এসে জমা হতে থাকে রক্তে। মানুষ যখন জীবিত থাকে তখন এগুলো কিডনি ও ফুসফুসের মাধ্যমে প্রক্রিয়াজাত হয়। রক্তে ক্ষারের মাত্রা (pH) স্বাভাবিক অবস্থা হতে পরিবর্তিত হয়ে যায়। সে কারণে রক্ত জমাট বেঁধে যায়।

তাছাড়া বিভিন্ন প্রাণঘাতী জীবাণু খুব দ্রুত বংশবিস্তার করতে পারে। অবশ্য এটা নির্ভর করবে কোন ব্যক্তি কোন অবস্থায় মারা গেছে তার উপর। যেমন কেও জীবাণুঘটিত কোনো রোগে যদি মারা যায় তাহলে মৃত্যুর পর ওই জীবাণু দ্রুত সমস্ত রক্তে ছেয়ে যেতে পারে। তখন দেহের আভ্যন্তরীণ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কিংবা জীবাণু প্রতিরোধ ব্যবস্থাও মৃত ব্যক্তির রক্তে সচল থাকে না।

একটি কথা তাত্ত্বিকভাবে বলা যেতে পারে, আর তা হলো মানুষ মারা যাওয়ার পর অতি দ্রুত রক্ত নিলে তা ব্যবহার করা যেতে পারে। অর্থাৎ মৃত্যুর পর রক্ত যেহেতু দ্রুত নষ্ট হয়ে যায় তাই মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গেই রক্ত সংগ্রহ করে নেওয়া যেতে পারে। তবে এখানে অন্য যুক্তিও রয়েছে। দেহের অন্যান্য অঙ্গ, যেগুলো দান করার ক্ষেত্রে রক্তের চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ বলে বিবেচিত হয় সেগুলোকে ব্যবহার উপযোগী রাখতে হলে রক্তের উপস্থিতির প্রয়োজন। ওই অঙ্গগুলো বের করে নেওয়ার পূর্বমুহূর্ত পর্যন্ত রক্তের উপস্থিতি প্রয়োজন পড়ে।

এখন সবার মনেই একটি প্রশ্ন আসতে পারে, আর সেটি হলো দেহের ওই অঙ্গ কেনো রক্তের চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। প্রথমতো জীবিত মানুষ কোনো ক্ষতি ব্যতীত রক্ত দিতে পারলেও কিডনি, চোখ, ফুসফুস ইত্যাদি দেওয়া প্রায় সম্ভব হয় না। জীবিত মানুষ যেহেতু রক্ত দিতে পারছে, তাই মৃত মানুষের সেক্ষেত্রে রক্তকে ব্যবহার করে দুর্লভ অঙ্গগুলো সংগ্রহ করাটাই উত্তম।

আর দ্বিতীয়ত হলো রক্ত সময়ের সঙ্গে সঙ্গেই তৈরি হয়। একজন মৃত মানুষের কাছ থেকে রক্ত পাওয়া যায় মাত্র একবার। আমাদেরকে রক্ত দানের ব্যাপারে সচেতনতা তৈরি করতে হবে। কারণ হলো একজন জীবিত মানুষ হতে প্রতি ৩/৪ মাস পর পর রক্ত সংগ্রহ করা যায়। তবে ৫০ এর উপরে বা অসুস্থতা থাকলে রক্ত দেওয়া যায় না। বিষয়গুলো সকলকেই খেয়াল রাখতে হবে। সুস্থ্য সকলকেই রক্ত দানে উৎসাহিত করুন। কারণ এক ব্যাগ রক্ত হয়তো একজন মানুষের জীবন রক্ষা করতে পারে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...