উল্টো বাংলাদেশকে দোষারোপ করলো মিয়ানমার!

১৯৯০-এর দশকের শুরুতে সম্পাদিত চুক্তি অনুযায়ী, যেকোনো সময় রোহিঙ্গাদের ফেরত নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করতে চায়

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ লাখ লাখ মিয়ানমারের নাগরিকদের খাওয়া-পরানোসহ সব দায়িত্ব পালন করছে বাংলাদেশ। মানবিক এই মহানুভবতার পরও উল্টো বাংলাদেশকে দোষারোপ করলো মিয়ানমার!

রাখাইন হতে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করতে বাংলাদেশ দেরি করছে- এমন অভিযোগ করেছে মিয়ানমার।

দেশটির স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চির কার্যালয়বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক (ডিজি) জ হতয় সাংবাদিকদের কাছে এই অভিযোগ করেন।

তিনি এও বলেছেন, কোটি কোটি ডলার আন্তর্জাতিক সহায়তা পাওয়ার আগ মুহূর্ত পর্যন্ত প্রত্যাবাসন শুরু করতে চায় না বাংলাদেশ সরকার।

সু চির মুখপাত্র জ হতয় আরও বলেছেন, ১৯৯০-এর দশকের শুরুতে সম্পাদিত চুক্তি অনুযায়ী, যেকোনো সময় রোহিঙ্গাদের ফেরত নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করতে চায় আমরা। তবে বাংলাদেশ এখনও চুক্তির সেই শর্তগুলো মেনে নেয়নি। আমরা ফেরত প্রক্রিয়া দ্রুত শুরু করতে চাই, তবে অপরপক্ষ (বাংলাদেশ) এখনও (চুক্তি) মেনে নেয়নি। সে কারণে প্রক্রিয়া বিলম্বিত হয়েছে। এটিই প্রধান কারণ।’

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের মিয়ানমার সফরকালে সীমান্তে লিয়াজোঁ অফিস চালুর বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষরিত হয়। তবে পুরোনো চুক্তিটির বিষয়টি নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

২৫ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সেনা অভিযান শুরুর সময় হতে ৬ লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে আশ্রয় নিয়েছে। নতুন পুরোনো মিলিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গার সংখ্যা ১০ লাখেরও বেশি।

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য বাংলাদেশের আহ্বান এবং আন্তর্জাতিক মহল হতে চাপ সৃষ্টি সত্ত্বেও মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে না নিয়ে উল্টো নানা অভিযোগ তুলছে। তারা বিভিন্নভাবে টালবাহানা করছে।

Advertisements
Loading...