পাঁচ ওয়াক্ত নামাজি এক পরিচালকের কথা

এই ছবির পরিচালক রায়হান রাফি একজন কোরআনের হাফেজ

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আজ আপনাদের জন্য রয়েছে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজি এক পরিচালকের কথা। ইসলাম ধর্মকে অবমাননা করা হয়েছে- এমন সমালোচনা উঠার পর এই ছবির পরিচালক ‘পাঁচ ওয়াক্ত নামাজি’ বিষয়টি উঠে আসে।

প্রথমবারের মতো সিনেমায় অভিষেক ঘটতে চলেছে টিভি অভিনেতা সিয়ামের। পূজা চেরির সঙ্গে জুটি হয়ে প্রথম ছবির প্রথম পোস্টারই ব্যাপক প্রশংসিতও হয়েছে। তবে সেইসঙ্গে সমালোচিতও হচ্ছেন। যদিও সেইসঙ্গে ওঠেছে পোস্টার নকলের অভিযোগ। ছবিটিতে ইসলাম ধর্মকে অবমাননা করা হয়েছে বলেও সমালোচনা করছেন অনেকেই।

বিষয়টি নিয়ে এবার কথা বলেন ছবিটির প্রযোজক ও নায়ক। জাজ মাল্টিমিডিয়ার ফেসবুক পেজে লাইভে ছবিটির বিষয়ে অনেক কথাই জানিয়েছেন।

ছবিটিতে ইসলাম ধর্মকে ছোট করার মতো কিছু নেই এই বিষয়ে পরিষ্কার করে ছবিটির প্রযোজক আজিজ বলেন, এই ছবির পরিচালক রায়হান রাফি একজন কোরআনের হাফেজ। তারচেয়ে বড় ধার্মিক কেও হতে পারে না। সে ছোট হতে বড় হওয়া পর্যন্ত মাদ্রাসায় লেখাপড়া করেছে। কোরআন শরিফের প্রতিটি আয়াত সে বাংলায় বোঝে। সে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ে। সুতরাং তাকে দিয়ে আপনারা ইসলামবিরোধী কিছু আশা করবেন না কখনও।

পোস্টারে বোরকা পরা মেয়েদের দেখানো প্রসঙ্গে আজিজ বলেছেন, পোস্টারে যে ধরনের বোরকা ব্যবহার করা হয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা ঠিক ওভাবেই পরে। সৌদি আরব বা ইউরোপের মেয়েরা আবার অন্যভাবে বোরকা পরে। এই পোস্টারে বাঙালি মেয়েদের চার হাজার বছরের পুরনো সংস্কৃতি তুলে ধরা হয়েছে। আমি নিজেই হজ্ব করেছি, নামাজ পড়ি। তাই এখানে বোরকা দিয়ে কখনও ধর্মকে ছোট করা হয়নি। এই পোস্টের রোরকা গল্পের সঙ্গে সম্পৃক্ত, তবে ধর্মের সঙ্গে সম্পৃক্ত নয়। গ্রাম বাংলার কালচারের সঙ্গে জড়িত রয়েছে এই বোরকা। ‘পোড়ামন ২’ ফোক গল্পের ছবি। পুরোটাই রোমান্টিক-ট্র্যাজেডি গল্পের।

পোড়ামন ২ ছবির নায়ক সিয়াম বলেছেন, ‘পোড়ামন ২’ ছবির পুরো টিম কতোটা ডেডিকেটেড হয়ে কাজ করেছি সেটা বলে বোঝাতে পারবো না। একমাত্র উদ্দেশ্য দর্শকদের ভালো লাগার জন্য একটা ভালো ছবি তৈরি করা। প্রযোজক আজিজ ভাই এতো বাজেট ব্যয় করে আমাদের মতো ইয়াংদের হাতে সবটাই ছেড়ে দিয়েছেন।

সিয়াম আরও বলেন, আমরা তাঁর বিশ্বাসের মর্যাদা রাখতে আপ্রাণ চেষ্টা করছি। সেরা কাজটা আমরা ডেলিভারি দিচ্ছি। এর জন্য দর্শক আপনার থেকে একটু সাপোর্ট চাচ্ছি, অন্যকিছুই না। তবে একটা শ্রেণির মানুষ এই কাজটিকে নকল বলছে। আপনি কাকে নকল বলছেন? আপনার দেশের মানুষ এতো কষ্ট করে একটি কাজ করছে, যে কাজের জন্য ২০০ পরিবার ঠিকমতো খেতে পারছে, সেই কাজটাকে আপনারা আটকে দিতে চাচ্ছেন! তাহলে কাজটা তো সামনে এগুবে না, নতুন ভালো কাজও আসবে না। প্লিজ আপনারা ইতিবাচক মানসিকতা প্রকাশ করুন, আমাদের সহযোগিতা করুন।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...