The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

টাইটানিকের নাবিকের সেই ‘ভূতুড়ে’ আয়না নিলামে উঠছে!

১৯১২ সালের ১৪ এপ্রিলের ঘটনা। পৃথিবীর ইতিহাসে যেনো এই দিনটি ছিলো এক কালো দিন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বহু লেখালেখি হয়েছে টাইটানিকের একটি আয়না নিয়ে। টাইটানিকের নাবিকের সেই ‘ভূতুড়ে’ আয়না এবার নিলামে উঠছে! আগামী ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে নিলাম হবে এই আয়নাটির।

টাইটানিকের নাবিকের সেই ‘ভূতুড়ে’ আয়না নিলামে উঠছে! 1

যে ভুতুড়ে আয়নার কথা বলা হচ্ছে সেই আয়নাটির বয়স ১১০ বছর। এই আয়নাটির মালিকের নাম এডওয়ার্ড জন স্মিথ। টাইটানিক জাহাজের অন্যতম নাবিক ছিলেন তিনি। এই আয়নাকে ঘিরেই শোরগোল পড়ে গেছে সারা বিশ্বজুড়ে।

আজকের ঘটনা নয়, সেই ১৯১২ সালের ১৪ এপ্রিলের ঘটনা। পৃথিবীর ইতিহাসে যেনো এই দিনটি ছিলো এক কালো দিন। এই দিনই মাঝ সমুদ্রে হিমশৈলের চূড়ায় ধাক্কা লাগে টাইটানিকের। তার পরের ঘটনা আমাদের সকলের জানা। মহাসমুদ্রে তলিয়ে যায় বিশাল এই জাহাজটি। যার গল্পের কাহিনী এখন সিনেমার মধ্যেেও দেখা যায়।

একটি বিষয় অনেকেরই জানা ছিল না এডওয়ার্ড জন স্মিথ নামক এক নাবিকের কথা। নিলামের সূত্র ধরে এখন তার নাম বাতাসে ভেসে বেড়াচ্ছে, তিনি নাকি সুস্থ্য দেহে বিরাজমান।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, নিলামে উঠতে চলেছে টাইটানিকের ওই নাবিকের ব্যবহৃত আয়নাটি। এই আয়নার নিলামে বিপুল দর ওঠার কারণ নাকি সম্পূর্ণ অন্য। আয়না ব্যবহারকারীদের দাবি, মাঝেমধ্যেই আয়নায় মালিকের মুখ নাকি ভেসে ওঠে।! সেটিই হলো এই আয়নাটির প্রধান ইউএসপি।

নিলামকারী সংস্থা বলেছে, আয়নাটির ন্যূনতম দাম সংস্থা রেখেছে বাংলাদেশী মুদ্রায় ১০ লাখ ৮৬ হাজার ৬০০ টাকা! কারণ টাইটানিক নিয়ে মানুষের উৎসাহ আজও বিদ্যমান। আগামী ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে এই আয়নাটি নিলামে উঠবে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...