The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

অস্ট্রেলিয়ায় দাবানল নিয়ন্ত্রণে লড়ছেন এক অন্তঃসত্ত্বা দমকল কর্মী!

দাবানলের আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করার কিছু ছবিও ইনস্টাগ্রামে পোস্টও করেন ক্যাট রবিনসন-উইলিয়ামস

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ অস্ট্রেলিয়ায় চলমান দাবানল অবস্থার ক্রমেই অবনতি ঘটছে। প্রতিদিন নতুন নতুন এলাকা আগুনে পুড়ে ছাই হচ্ছে। এমন এক অবস্থায় আগুন নিয়ন্ত্রণে দমকল বাহিনীর অন্য সদস্যদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়ছেন জনৈকা অন্তঃসত্ত্বা স্বেচ্ছাসেবী দমকল কর্মী!

অস্ট্রেলিয়ায় দাবানল নিয়ন্ত্রণে লড়ছেন এক অন্তঃসত্ত্বা দমকল কর্মী! 1

অস্ট্রেলিয়ায় চলমান দাবানল অবস্থার ক্রমেই অবনতি ঘটছে। প্রতিদিন নতুন নতুন এলাকা আগুনে পুড়ে ছাই হচ্ছে। এমন এক অবস্থায় আগুন নিয়ন্ত্রণে দমকল বাহিনীর অন্য সদস্যদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়ছেন জনৈকা অন্তঃসত্ত্বা স্বেচ্ছাসেবী দমকল কর্মী! খবর বিবিসির।

আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার লড়াইয়ের ওই স্বেচ্ছাসেবী দমকল কর্মীর নাম ক্যাট রবিনসন-উইলিয়ামস। এই দমকলকর্মী ১৪ সপ্তাহের অন্তঃসত্ত্বা। স্মরণকালের ভয়াবহ দাবানলে যখন পুড়ছে অস্ট্রেলিয়া ঠিক তখন নিজেকে ঘরে আটকে রাখেননি এই নারী কর্মী। বন্ধু ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের নিষেধ উপেক্ষা করেই দিন রাত কাজ করে যাচ্ছেন ক্যাট রবিনসন-উইলিয়ামস।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা গেছে যে, গত সোমবার দাবানলের আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করার কিছু ছবিও ইনস্টাগ্রামে পোস্টও করেন ক্যাট রবিনসন-উইলিয়ামস। যার শিরোনামে তিনি লিখেন, ‘হ্যাঁ আমি একজন দমকল কর্মী। না আমি পুরুষ নই। হ্যাঁ আমি একজন গর্ভবতী।’

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা গেছে, ক্যাটের এই পোস্ট ইনস্টাগ্রামে ব্যাপক সাড়া ফেলে দিয়েছে। অনেকেই তাকে নারীদের জন্য অনুকরণীয় বলেও উল্লেখ করেছেন। তবে তার বন্ধুরা ক্যাটকে ফিরে আসতেও বলেন। জবাবে ক্যাট বলেছেন যে, ‘আমি থামবো না; কেবল আমার শরীর যখন থামতে বলবে তখনই থামবো।’

ক্যাট সংবাদ মাধ্যম বিবিসিকে জানিয়েছেন যে, দমকল কর্মী হিসেবে কাজ করার বিষয়টি তার পারিবারিক ঐতিহ্য। তার তিন প্রজন্ম দমকল কর্মী হিসেবে কাজ করে আসছেন। ক্যাটের স্বামী, দাদীসহ পরিবারের বেশ কয়েকজন সদস্য এখনও স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করে চলেছেন। শুধু তাই নয়, ১৯৯৫ সালে তার মাও অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় দাবানলের সময় দায়িত্ব পালন করেছিলেন বলে জানিয়েছেন ক্যাট রবিনসন-উইলিয়ামস।

উল্লেখ থাকে যে, ভয়াবহ দাবানলে নাকাল অস্ট্রেলিয়ায় এ পর্যন্ত ৩ জন নিহত হয়েছেন। এই দাবানলে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন অন্তত ৬০ লাখ মানুষ। নিউ সাউথ ওয়েলস এবং কুইন্সল্যান্ডের অন্তত ১’শ ৫০ টি স্থানে এখনও আগুন জ্বলছেই। শুষ্ক আবহাওয়ার কারণে অবস্থার আরও অবনতি হতে পারে বলেও আশংকা করা হয়েছে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...