The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

কোভিড-১৯ পুরুষবাচক নাকি স্ত্রী শব্দ?

রোগ-জীবাণুরও স্ত্রী এবং পুরুষবাচক শ্রেণী রয়েছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের আগমনের পর গোটা বিশ্ব যেনো পাল্টে গেছে। করোনার নাম দেওয়া হয়েছে কোভিড-১৯ এটি কী পুরুষবাচক নাকি স্ত্রী শব্দ?

কোভিড-১৯ পুরুষবাচক নাকি স্ত্রী শব্দ? 1

রোগ-জীবাণুরও স্ত্রী এবং পুরুষবাচক শ্রেণী রয়েছে। তাহলে বিশ্বব্যাপী দাপট দেখানো করোনা ভাইরাস কোন বাচক হবে?

চীনের উহান হতে ছড়িয়ে পড়লেও করোনা রভাইরাস বা কোভিড-১৯ কীভাবে ছড়াচ্ছে, আদৌ কোনো প্রাণীর শরীর হতে এসেছে কিনা বা এ থেকে বেঁচে থাকার কী উপায় রয়েছে- তা নিয়ে বিস্তর গবেষণা করছেন বিশ্বব্যাপী নামী-দামি বিজ্ঞানীরা। এমনকি কোভিড-১৯ পুরুষবাচক নাকি স্ত্রীবাচক সেটিও নাকি গবেষণার একটি বিষয়!

করোনা ভাইরাস বা কোভিড-১৯ কোন বাচক বা শ্রেণীর তারই সমাধান দিয়েছে ফ্রান্স। ফ্রান্সের অ্যাকাডেমি ফ্রান্সেইস। সংস্থাটি বলছে যে, কোভিড-১৯ স্ত্রীবাচক শব্দ! অবশ্য অনেক ক্ষেত্রে এটি সাধারণভাবেই ব্যবহৃত হচ্ছে।

কেনো করোনা রভাইরাস বা কোভিড-১৯ স্ত্রীবাচক শব্দ হলো?

ফ্রান্সের ওই অ্যাকাডেমি ফ্রান্সেইসের তথ্যমতে, ফরাসি ভাষায় ‘মালাডি প্রোভোকি পার লা করোনা ভাইরাস’ মানে হলো করোনা ভাইরাস থেকে সৃষ্ট একটি রোগ। ‘মালাডি’ হলো একটি স্ত্রীবাচক শব্দ। তাই যেহেতু করোনা ভাইরাস বা কোভিড-১৯’ ক্ষেত্রে মালাডি বলা হয়েছে; সেক্ষেত্রে অবশ্যই এটি একটি স্ত্রীবাচক শব্দই।

ফরাসি ভাষায় ‘লা’ ও ‘লে’র মধ্যে ব্যাপক পার্থক্য রয়েছে। যার মূখ্য পার্থক্য প্রতীয়মান হয় স্ত্রী ‍এবং পুরুষ ভেদে। কোনো শব্দের আগে ‘লা’ বসলে সেটি স্ত্রীবাচক, লে বসলে সেটি পুরুষবাচক ধরা হয়।

যেমন- যুক্তরাষ্ট্রের ‘সেন্ট্রাল ইন্টিলিজেন্স এজেন্সি’ (সিআইএ) ফরাসি ভাষায় বলা হয় স্ত্রীবাচক। কারণ হলো ফ্রান্সে সেটি ‘লা সিআইএ’ উচ্চারিত হয়ে থাকে। আবার ‘ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন’ (এফবিআই) হলো পুরুষবাচক শব্দ, কারণ এটি উচ্চারিত হয় ‘লে এফবিআই’ শব্দ হিসেবে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...