The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ক্লান্ত গন্ডার যখন রাস্তায় ঘুমিয়ে [ভিডিও]

ভারতের আসামে ধেয়ে আসা প্রবল বন্যায় বিপন্ন বন্যপ্রাণীরাও

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ চারিদিকে বন্যায় যখন থৈ থৈ অবস্থা তখন আর জায়গা না পেয়ে রাস্তায় উঠে এলো এক গন্ডার। অবশেষে ক্লান্ত গন্ডারটি রাস্তায় ঘুমিয়ে পড়লো!

ক্লান্ত গন্ডার যখন রাস্তায় ঘুমিয়ে [ভিডিও] 1

ভারতের আসামে ধেয়ে আসা প্রবল বন্যায় বিপন্ন বন্যপ্রাণীরাও। সেখানকার কাজিরাঙা জাতীয় উদ্যান এবং টাইগার রিজার্ভের অসংখ্য পশু পালিয়ে নিজেদের প্রাণ বাঁচানোর চেষ্টা করে আসছে। তেমনই একটি গন্ডারের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

একটি বয়স্ক গন্ডার পালাতে গিয়ে এতোটাই ক্লান্ত হয়ে পড়েছিল যে, জাতীয় সড়কের পাশেই ঘুমিয়ে পড়েছিলো। একটি ভিডিওতে দেখা যায়, বন বিভাগের কর্মীরা প্রাণীটিকে বাঁচিয়ে যান চলাচল কীভাবে স্বাভাবিক রাখা যায় সেই চেষ্টা করে যাচ্ছেন।

বনকর্মীরা চলাচলকারীদের কাছেও অনুরোধ জানাচ্ছেন কোনোভাবেই গন্ডারটিকে উত্যক্ত না করার জন্য। গাড়িগুলোকে খুবই ধীরে, আওয়াজ না করে পাশ কাটিয়ে চলে যাওয়ার আবেদন জানাচ্ছেন বন বিভাগের কর্মীরা।

দেশটির কাজিরাঙা জাতীয় উদ্যান ও টাইগার রিজার্ভের সোশ্যাল মিডিয়া পেজে ভিডিওটি শেয়ার করে তাতে লেখা হয়, “বাগোরি রেঞ্জের বান্দার ধুবি এলাকায় একটি গন্ডার ৩৭ নম্বর জাতীয় সড়কের ওপর ঘুমিয়ে ছিল। পুলিশের সঙ্গে সহযোগিতায় আমরা তাকে রক্ষা করছি। আপনারা ধীরে গাড়ি চালান।”

উল্লেখ্য, বন্যার কারণে প্রাণ বাঁচাতে এই উদ্যানের অধিকাংশ প্রাণী লোকালয়ে নয়তো জাতীয় সড়কে চলে আসছে। কয়েকদিন আগে দুটি বাঘও জঙ্গল সংলগ্ন একটি বাড়িতে চলে আসে। বন্যার জেরে মায়ের থেকে আলাদা হয়ে যায় এক গন্ডার শাবকও। শেষ পর্যন্ত গ্রামবাসীরা তাকে উদ্ধার করলেও মাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। বন্যপ্রাণী পুনর্বাসন এবং সংরক্ষণ কেন্দ্র বা সিডব্লিউসি-র একটি দল নৌকায় করে ওই গন্ডার শাবকটিকে তখন উদ্ধার করে।

দেখুন ভিডিওটি

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...